এক.

অভিমানের বৃষ্টিগুঁড়ো জমলে চোখে

মুগ্ধ হয়ে দেখি যে কি অবাক তোকে!

স্বপ্নগুলো হারায় যখন ক্লান্ত ডানায়

সেই দুপুরে নদীর ধারে উদাসী পা’য়

একলা বালক বৃষ্টি খুঁজি- স্বপ্ন খুঁজি

অভিমানী চোখে ও কি- দুঃখ বুঝি?

 

দুই.

মুঠোফোন যদি থাকেই নীরব- থাকুক

বিচ্ছেদে পুড়ে ক্লান্ত প্রহর- কাটুক

হতাশা জড়ানো তামসিক রাত

হৃদয়ে ক্ষোভের দ্বিধা সংঘাত

ক্যানভাস জুড়ে বেদনার খরা- আঁকুক

 

তিন.

"আমার হৃদয়টা টুকরো টুকরো করে কাটলে

হয়ত তোমার কিছু পাসপোর্ট সাইজের ছবি পাওয়া যাবে"

 

চার.

"তুমি বসে আছ, নির্জন উপকূলে

আমি যেন এক সমুদ্রচারী হাওয়া

কেবলই তোমার বুকের আঁচল তুলে

হাতরাই- যদি হৃদয়টা যায় পাওয়া"

 

পাঁচ.

"ভাল কী আর এমনি বাসি সই

বুকের ভেতর দারুণ প্লাবন- জল করে থই থই"

...............................

প্রথম দুটো নিজের। তৃতীয়টি অনেক আগের বিটিভির একটা নাটক থেকে নেয়া।

চতুর্থটির উৎস অজানা। যার কাছ থেকে শুনেছি তার দাবী এটি কবিগুরুর।

যদিও রচনাবলী ঘেটেও খুঁজে পাইনি। কেউ জানলে বলবেন। পঞ্চমটির উৎসও অজানা।

হয়ত খেলাচ্ছলে নিজেই কখনো লিখে ভুলে গেছি। কেউ নিজের বলে প্রমাণ করতে পারলে

নিয়ে যাবেন। :D