বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftসাহিত্য ব্লগ

ত্রিশংকু

লুতফুল বারি পান্না

  • advertisement

    মনে পড়ে
    ................
    যে ঢোকগুলো বেরোতে গিয়েও
    আটকে ছিল কন্ঠায়
    এন্টার্কটিকার মত
    জমাট বেঁধে থাকা বরফের টুকরোগুলো আর
    যেসব মেঘ উড়ে উড়ে গেছে দক্ষিণে
    তাদের সবার কথা খুব মনে পড়ে

     

    যে যার মত
    ...................
    পার্কের দুপুর শুনসান শুয়ে থাকে বেঞ্চে
    জানলার শিকগুলো দুঃখী দুঃখী চোখে
    তাকায় দিগন্তে
    বিকেলের রঙিন ছাদ অবলীলায় ঝিলমিলিয়ে হাসে
    প্রত্যাশায় ব্যাকুল হয়ে ওঠে দূরের মাঠ

     

    ক্রমাগত ভ্রুকুটি হানে ছড়ানো চুল
    আর নীলচে টিপের নীচে একজোড়া তরঙ্গিনী চোখ

     

    ম্যাজিক
    ..............
    একটা ছোট্ট জানালা থেকে আচমকা বেরিয়ে এল নদী

     

    উঠোনটা নিমেষে পার্ক হয়ে গেল
    হ্যালোজেন স্নিগ্ধতা মাখল পড়ন্ত বিকেল
    কুজনে মুখর হয়ে
    মৌসুমি পাখিগুলো ভীড় করে এল আঙিনায়

advertisement

  • আহমাদ মুকুল
    আহমাদ মুকুল মুগ্ধতা ছড়ালো। অনেকবার পড়তে হবে।
    প্রত্যুত্তর . ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১২
  • রনীল
    রনীল অনুভুতিতে নাড়া দেবার মত ভাষা... অনেক সুন্দর... ত্রিশঙ্কু শব্দের মানেটা কি?
    প্রত্যুত্তর . ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১২
    • লুতফুল বারি পান্না শঙ্কু শব্দটার আভিধানিক অর্থ পৌরাণিক অস্ত্র বিশেষ, শেল, শলাকা, শলা, কীলক, গোঁজ, বিক্রমাদিত্যের নবরত্ন সভার এক রত্ন- ইত্যাদি। ত্রি যোগ করা হয়েছে তিনটা টুকুরো কবিতার নিরিখে। কবিতাটা কিছুটা বিমূর্ত ধারার- তাই নামকরণেও যেকোন অর্থ ধরে নেয়া যেতে পারে। যে যেভাবে নেয়। আমাকে জিজ্ঞেস করলে আমি হয়ত প্রথমটার কথা বলব। ধন্যবাদ রনীল।
      ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১২
    • লুতফুল বারি পান্না তবে এ কবিতাগুলোর সুনির্দিষ্ট অর্থ অবশ্যই আছে। সত্যি বলতে কি জটিল কোন তত্বকথাই নেই। মানবিক অনুভূতিগুলোকেই একটু ঘুরিয়ে বলা। শুধু পড়ার সময় অনুভূতির জানলাগুলো একটু খুলে রেখে পড়তে হবে। আর প্রচলিত সাধারণ উপমাগুলো বুঝতে হবে- যেমন নদী সচরাচর কিসের উপমা?
      ২৯ ফেব্রুয়ারী, ২০১২
  • সালেহ  মাহমুদ
    সালেহ মাহমুদ পান্না ভাই, মুগ্ধতা রেখে গেলাম।
    প্রত্যুত্তর . ২ মার্চ, ২০১২