হাত কেটে গেছে কফিনের কাঁচে, হৃদয় পুড়েছে আঁচে
তার পরও কেউ কাছে এসে যদি মুহূর্তকাল যাঁচে
উষ্ণ প্রণয়, কিছু বরাভয়, কিছুটা আবেগী রেতে
দিয়ে দিতে কিছু পরামুখ নই, যতটা তলানি আছে

 

মুখ পুড়ে গেছে নিজের আগুনে, হনুমানই বলে লোকে
কুৎসিত এই আদল ঢেকেছি সহিষ্ণু- নির্মোকে
সব অভিযোগ, সব উত্তাপ- ক্ষোভ নিই মাথা পেতে
আড়ষ্ট ঠোঁট কেঁপে কেঁপে ওঠে, প্রতি পানে, প্রতি ঢোকে

 

তার ছিঁড়ে গেছে, সেতারে জমেছে সময়ের ধুলোবালি
কিছুই জোড়ে না, যতই প্রলেপ- যত রিপু, যত তালি
পুষ্প ছড়ানো আঙুল কাঁটায় বিক্ষত- দ্বিধাহত
বাগান উজাড়, ঘাসে পড়ে থাকি- পরাস্ত একা মালি

 

দিয়ে দিতে তবু পরামুখ নই, নির্ভার হই দিয়ে
পলকা শরীর আকাশের স্রোতে ঘুড়িসম দি উড়িয়ে
শুধু যার হাতে নাটাইয়ের টান- অদৃশ্য নীল সুতো
শুধু যার চোখে সুনীল দহন- পুড়িয়ে পুড়িয়ে

 

মারে। সেই শুধু পারে অলোকলতায় ফেরাতে- রাংতা মুড়ে
সেই শুধু পারে আবীর ছড়াতে- অনন্ত পথ জুড়ে