অনন্তর আমার এই ছুটে চলা তোমায় ছুঁতে
বন্ধুর পথ বেয়ে ক্ষত বিক্ষত রক্তাক্ত পায়ে
অক্লান্ত আমি ছুটে চলি
কিছুতেই পারিনা ছুঁতে তোমায়।
কেবলই সরে যাও দূরে
দূর থেকে আরো দুরে।
স্পষ্ট ইঙ্গিতে তুমি ডাকিছ কেবল।
অনিরুদ্ধ উন্মাদ আমি তায় কেবলি ছুটে যাই।
সহস্র যোজন পাড় হয়ে তবু
অধরাই রয়ে যাও, পারিনা ছুঁয়ে যেতে।
আর কতকাল বল
কত জল গড়ালে গঙ্গায়।
কত বসন্ত পূড়লে পরে
কত শরতের কাশ বিবর্ন হলে
কত বরষায় ভিজলে হৃদয় পার্থিব হবে প্রিয়?
অপার্থিব প্রেয়সি আমার একবার শুধু ছুয়ে দাও, একবার।
আমার মৃত প্রায় স্রোতস্বিনি হবে নবযৌবনা
বিবর্ন আকাশ সাজবে সুনিলের আভায় ।
ক্লান্ত প্রান আমায় দাও সঞ্জীবনী এবার।
বেঁচে যাই-মরে যাই, যাই বিলীন হয়ে তোমায়।