জীবন নামের বৃক্ষ থেকে, পত্র যখন পড়ছে ঝড়ে,
তুমি তখন চুপটি করে, কুড়িয়ে নিলে যত্ন করে।
ক্লান্তি ঝরা দিনের পরে, ঘুমের ঘোরে যেতাম ঢলে,
সন্ধ্যাতারা হয়ে তুমি, সাঝের বাতি জ্বেলে দিলে ।

ঘুমের ঘোরে স্বপ্ন দেখা, সেটাও যখন ভুলতে বসা,
কল্পনারই রজ্যে তোমার, রাজকন্যার বেশে আসা।
একঘেয়েমির দিনটি যখন, শুরুহত যেমন তেমন;
তুমি তখন এমন করেই!সাজিয়ে দিলে মনের মতন।

ব্যাস্ত দিনে যখন আমি, ঘুরছি যেন লাটিম খানি,
ক্লান্ত দুপুর উদাস হয়ে, হারিয়ে যেত কেমন যানি;
কোথা হতে, কেমন করে; ঠিক তখনই তুমি এলে
কোন হৃদয়ের পরশ দিয়ে, নীলাচলে জড়িয়ে নিলে।

সব হারিয়ে যখন আমি, মানুষ রুপী যন্ত্র ছিলাম,
ঠিক তখনই তোমায় পেয়ে, ধন্য আমি ধন্য হলাম
শূণ্য হৃদয় পূর্ণ হল, সব হারিয়েও সবটা পেলাম
তাই তোমার পাশেই শেষ কটা দিন—
না হয় আমি থেকে গেলাম।