হাওয়ার সাথে যুদ্ধ করে

পরের জন্য গর্ত করে নিজের পথ

নিজেই করে রুদ্ধ!

 

ভয়ানক সৈনিক তিনি

বাযবীয় তলোয়ার নিয়ে দেন হুঙ্কার...

নড়বড়ে ভিতের উপর দাঁড়িয়ে

পাহাড় ঠেলেন নিতি।

 

রসদ তার হাওয়াই মিঠাই

সাঙ্গ পাঙ্গ কিছু তালপাতার সেপাই।

গর্জনে তার নড়ে না গাছের পাতা।

অবাক বিস্ময়ে তাকায় জনতা-

কোথায় শত্রু, কোথায় রয় পাপাত্মা?

 

অবশেষে অভাজনে কয়-

ছানি পড়েছে তার নজরে,

মরিচা বুদ্ধিতে।

চিৎকারে নজর কাড়ে

না জানি অবহেলায় পিছে পড়ে রয়!

 

 

এমন এক হাওয়াই যোদ্ধার কথা পড়েছিলাম স্কুল পাঠ্য বইয়ে, সারভেন্টিস সম্ভবত লেখকের নাম। নাইট উপাধী পাগল ডন কুইক্সোটের আদলে লড়াই আজো দেখি এই সমাজে। মানসিক বৈকল্য, নাকি অন্যকোন বাসনা তাদের তাড়া করে ফেরে, সেই প্রশ্নের উত্তর খুঁজি। তবে এটাও বুঝি, উপভোগ জিনিসটা দারুন। যে কোন রঙ্গ-তামাশায় হাসতে পারাটা আজকাল সহজে হয়ে ্ওঠে না। চলুন, এক চোট হাসি।