হয়েছিল কি যাবার সময় ?
তোমার কাছে হয়তো তাই মনে হয়।
তাই তুমি অসময়ে গিয়েছ চলে,
আমাদের কাউকে কিছু না বলে।
 
প্রাণ ছেড়ে দেহ কোথায় চলে যায়?
যাবার সময় কি তা বলে যায়?
বলে গেলে ভালো হতো
খুজতাম তোমাকে,
মেঘের উপর অচিনপুরে
কিংবা নন্দিত নরকে।
 
দখিন হাওয়ারা আজ বড় একাকী,
চলে গেছে ‘তাহাদের’ শুয়াচাঁন পাখি।
চলে গেছে বসন্তের দিন
আসবেনা আর ফিরে,
তবু কান পেতে থাকি,
নক্ষত্রের রাতে যদি সে আসে ধীরে।
 
হলুদ রোদ ঘরে আসে,
জানালার ফাক গলে,
হলুদ বলে তুমি নাই,
দূরে গেছ চলে।
আধারে মোড়ালে তুমি
মোড়ালে নিজেকে,
জোছনার রঙ তাই হয়ে গেছে ফিকে।
বেছে বেছে গেলে তুমি শ্রাবনের দিনে,
জোছনাকে তুমি বেধেছ কি ঋণে।
 
প্রাণ ছেড়ে দেহ কোথায় যে যায়?
যেতে চাইলেই কি চলে যাওয়া যায়?
তুমি রবে জোছনায়, শ্রাবনের মেঘে,
তুমি রবে আমাদের প্রাণের আবেগে।
 
প্রাণ ছেড়ে দেহ কোথায় যে যায়?
অচিনপুরের কোন অচেনা মায়ায়?
দেহ যায়, প্রাণ থাকে,গল্পেরা থাকে,
গল্পের যাদুকর থাকে তার সাথে।
[রচনাকালঃ জুলাই২০১২]