সবাই যখন ঈর্ষা সংখ্যার কবিতার জন্য সাগ্রহে অপেক্ষা করছেন তখন না হয় একটা কবিতা এখানেই দিলাম...

 

ঈর্ষা 

গ্যাংগ্রিন বাধানো এই তীর বেঁধা মনের জখম

দিন রাত বেড়ে চলে, ফাটা কাঁচ, যতিচিহ্ন কম।

এ যেন মর্চে পড়া ঝুরা ঝুরা তেড়চা লোহার পাত

সঙ্গে তার কুলাঙ্গার ধোঁয়া মাখা অম্লের সাক্ষাৎ।

বিষের মাকড় বোনে আতিপাতি কৌটিল্যের জাল

বৃত্তে বৃত্তে বিকেন্দ্রিক কাপালিক রিপুর ভেজাল।

সারে না নুনের ছিটা, সরে না এ চোখের বালি

বুক জুড়ে খাঁ খাঁ যেন ভরা বাসে আসন খালি।

দোয়াত উপুড় করে এত কালি কে-ই বা বিলোয়

তামসিক আকরিকে নীলে নীল অলিন্দ-নিলয়।

এ  দহন নেপথ্য, কে জানে আদতে  ব্যাধি কি,

বিনাশে খুঁজি পথ্য, মাৎসর্যে  জ্বলি ধিকি ধিকি।