আমার এ হাত ও হাতকে বলে 
দাওনা, নির্ভরতা
না হয় বাতাস না হোক
কাটাতে পারি দুঃখবিষন্নতা
দেখনা সমাজ শ্বাসের মুখে দিয়েছে কেমন আড়ি
সন্ধ্যার মুখে রুদ্রদিন জমিয়ে নিচ্ছে পাড়ি।
ষোল আনা গুণে গুণেই জানো এক আনাও আর নেই
কে দাতা আর কে যে গ্রহীতা 
কারে প্রতিদান দেই?
তবুও পক্ক শ্বশ্র“র কাছে খনার বাক্য খুঁজি
কেউ না বুঝুক আমি মধ্যমা, আমি অন্ততঃ বুঝি।
পালা বদলের হিতৈষী ঋতু গান, 
প্রকৃতির বুকে মরে যাওয়া নদী গল্প
নদেদের মুখে অসময় ডাকা বান
তাই গুছিয়ে তুলেছি বিছানো সবুজ প্রান্তর,
নিজের হাতেই অক্ষম হাত রাখি।
আপন দুহাত হোক না শব্দ নির্ভর
কিছুটা সময় করে নিক কানাকানি
অতঃপর আলোর হাত ধরে হবে 
স্বার্থক জানাজানি।