লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২৬ মে ১৯৮৭
গল্প/কবিতা: ৫৯টি

সমন্বিত স্কোর

৪.৩২

বিচারক স্কোরঃ ২.১ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ২.২২ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftপূর্ণতা (আগস্ট ২০১৩)

দু'পাশ থেকে
পূর্ণতা

সংখ্যা

মোট ভোট ৪৮ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.৩২

পন্ডিত মাহী

comment ২৩  favorite ৩  import_contacts ১,৭০৭
বুকের ভেতর উঁকি দিয়ে
কেউ বলেছিলো,
“এমন কেউ নেই –
তোমার মত তোমার ইচ্ছেয়-
ও কবিতা হাত ছুইয়ো-
চৌরাস্তা দূঃখ করোনা-
সিন্দুক খুলে রুপার আয়না তুলো আলগোছে-“

কিংবা শুধু নিঃসঙ্গতা
বুকের মাঝে আলো জ্বেলে
কেউ পথ খুঁজে লতা গুল্ম মাড়ায়- মাড়াক
কেউ তালা ভেঙ্গে
দেখুক বন্ধ দ্বার দু’রকম
আলো- কালো
“তবু কিছু বলো না-
কাপড়ে সুতোয় বুনো- “মনে রেখো আমায়”
বলো না, দূরে গেলে আগাছা মনেও জন্মায়”

এটাও হয়তো মলাটের মত
আমরাও বাঁচি সাথে নিয়ে
দু’রকম স্মৃতি ভবিষৎ ও অতীত-
আর বারান্দায় নিঃশ্বাস অট্টহাস নিশীথের নারীর;
অর্থাৎ হাল্কা অন্ধকারে স্মৃতি দোল খায়
সিড়ি ভেঙ্গে ভেঙ্গে উপরে উঠতে উঠতে
আমাদের পা কাঁপে


ঘর পালানো ধূসর খাতায়
আরেকটা জড়ানো কবিতায়
কিংবা গান, কিংবা নদীর নিঃশ্বাসে
একটা অতিরিক্ত ছায়া উপুর হয়ে ভাসাই
আমরা হেঁটে যাই, কাছে গিয়ে বলি,
“এমন কেউ নেই তুমি কিংবা তোমার মতন”

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
  • জায়েদ  রশীদ
    জায়েদ রশীদ ভিন্ন স্বাদের কবিতা, ভিন্ন রকম ভাল লাগা...। সুন্দর লিখেছেন।
    প্রত্যুত্তর . ৭ আগস্ট, ২০১৩
  • মোহাম্মদ ওয়াহিদ হুসাইন
    মোহাম্মদ ওয়াহিদ হুসাইন ...ঘর পালানো ধূসর খাতায়...আরেকটা জড়ানো কবিতায়...। ভাল লেগেছে। শুভেচ্ছা রইল।
    প্রত্যুত্তর . ১০ আগস্ট, ২০১৩
  • মিলন  বনিক
    মিলন বনিক অর্থাৎ হাল্কা অন্ধকারে স্মৃতি দোল খায়
    সিড়ি ভেঙ্গে ভেঙ্গে উপরে উঠতে উঠতে
    আমাদের পা কাঁপে - মাহী ভাই...অসাধারন...অসাধারন...প্রিয়তে রাখলাম...ভাবনার বিশালতা মুগ্ধ করেছে...
    প্রত্যুত্তর . ১১ আগস্ট, ২০১৩
  • মামুন ম. আজিজ
    মামুন ম. আজিজ রিয়েলিটির চারু অংকনে এক নঁকশী বুনন যেন কবিতা.....উড়নচন্ডি মনের কত গোপন বাস্তবতার সুরও বলা যেতে পারে।
    প্রত্যুত্তর . ১১ আগস্ট, ২০১৩
  • বিদিশা চট্টপাধ্যায়
    বিদিশা চট্টপাধ্যায় আপনার দক্ষ হাত। খুব ভাল লাগল।
    প্রত্যুত্তর . ১৪ আগস্ট, ২০১৩
  • কঠিন সমালোচক
    কঠিন সমালোচক কবিতার প্রথম অংশটা বেমানান লাগছিল।কেন? পরে উত্তর খুঁজে পেলাম ছন্দ মিলেনি বলে।বাকিটা ঠিক আছে।
    প্রত্যুত্তর . ১৮ আগস্ট, ২০১৩
  • amar ami
    amar ami 'কেউ নেই আমি বা আমার ইচ্ছের মত' আসলেই তাই, একজনও যদি থাকত তবে নতুন কবিতা হত !..
    প্রত্যুত্তর . ১৯ আগস্ট, ২০১৩
  • কঠিন সমালোচক
    কঠিন সমালোচক কবির কাছে তো এরকম জবাব আশা করিনি।ছন্দ যদি না মিলে তবে আগামীতে তা হলে আতা গাছে তোতা পাখি না হয়ে ইলিশ মাছ হতে পারে।
    প্রত্যুত্তর . ২০ আগস্ট, ২০১৩
    • পন্ডিত মাহী chondo diye ami sadharonoto likhi na. jorpurbok eti niye lekhar issao nei. tate jodi kobita na hoye okhado kisu hoy tateo afsos nei. keu okkhaddo porle porbe, na porle na porbe..... tobe mojar bisoy holo, amar okhaddo lekha porar moto kisu boka pathok ekhane ase.
      প্রত্যুত্তর . ২০ আগস্ট, ২০১৩
    • সিপাহী রেজা আপনার নাম চেঞ্জ করে "পোতাইন্না সমালোচক" রাখেন তাইলে মন্তব্যের সাথে নামের মিল থাকবে। আতা গাছে তোতা পাখি ঐটা ছড়া!! আর কবিতায় ছন্দ থাকতে হইব সেইটা কোন আইনে লেখা আছে? যত্তসব!!!! মাহি ভাই কবিতা ভালো লাগছে, আর কিছু কওনের নাই। এইসব আজগুবি পাবলিকের জন্যই এই সাইটে আসতে ইচ্ছা হয় না। ভোগাস পাবলিক...
      প্রত্যুত্তর . ২১ আগস্ট, ২০১৩
    • পন্ডিত মাহী thank you sipahi vai
      প্রত্যুত্তর . ২১ আগস্ট, ২০১৩
    • কঠিন সমালোচক তার মানে বুঝা গেল সবাই প্রশংসা পেতে ভালবাসে।সমালোচনা কেউ চায় না।আমার মনে হয় আমি যত কবির কবিতা পড়ছি তাদের লেখার মাঝে একটা ছন্দ থাকে,তাই ছন্দের জাদুকর উপাধী ও দেয়া হয়েছে।সিপাহী রেজা ছন্দের মিল নাই দেখেই তো ভালমানের কবি যেমন পাচ্ছে না বাংলা সাহিত্য তেমনি ভাল মানের কবিতা ও।আর তাই পান্ডুলিপী নিয়ে প্রকাশকের দুয়ারে দুয়ারে কেউ দৌড়ে যায় না।পকেটে ১০০০০-২০০০০ টাকা থাকলেই চলে।প্রশংসা করাটা অনেক সহজ কিন্তু সমালোচনা,এটা সবাই করতে পারে না
      প্রত্যুত্তর . ২২ আগস্ট, ২০১৩
    • লুতফুল বারি পান্না ভেবেছিলাম কিছু বলব না। অতীতে বলতে গিয়ে অশালীন আক্রমনের শিকার হয়েছি। তারপরও বলা উচিত মনে করেই বলছি। এ প্রসঙ্গে আপনার শেষ লাইনের সূত্র ধরেই বলি। "প্রশংসা করাটা অনেক সহজ কিন্তু সমালোচনা,এটা সবাই করতে পারে না"- একটা দারুণ সত্য কথা বলেছেন। সমালোচনা করতে হলে আসলে কিছু ধারণা, কিছু তথ্যসমৃদ্ধ হওয়া দরকার। দরকার একচোখা দৃষ্টিভঙ্গী থেকে মুক্তি। বাংলা কবিতার শুরু হয়েছিল চর্যাপদ থেকে। যেগুলো আসলে গান। গানে ছন্দ তাল সবই থাকতে হয়। সে কারণেই তাতে ছন্দের প্রয়োজনীয়তা ছিল। সেটাকে স্ট্যান্ডার্ড ধরে পরবর্তীতে কবিতা রচনা চললেও প্রথা ভাঙা মানবিক বৈশিষ্ট্য। এই কঠিন কাজটি শুরু করেছিলেন মূলত গদ্যকার হিসেবে পরিচিত প্রেমেন্দ্র মিত্র। সে গদ্যকবিতার বয়সও প্রায় ১০০ বছরের কাছাকাছি চলে এসেছে। এই সময়ে এসে গদ্যকবিতার বিরুদ্ধে একজন সাধারণ মানুষ কথা বললে মেনে নেয়া যায়। একজন সমালোচক বললে মানা একটু কষ্টকর। যেখানে খোদ রবীন্দ্রনাথ অসংখ্য পাঠকপ্রিয় গদ্যকবিতা রচনা করে গেছেন। প্রথমত আপনার এই বক্তব্যটাই ভুল- (ছন্দের মিল নাই দেখেই তো ভালমানের কবি যেমন পাচ্ছে না বাংলা সাহিত্য তেমনি ভাল মানের কবিতা ও।) এতে করে বাদ পড়ে যায় ত্রিশের বিখ্যাত পঞ্চ কবিদের চারজনই। বাদ যান সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়, শামসুর রাহমানদের মত কবিরা। অর্থাৎ কবিতা থেমে থাকে একশ বছর আগ পর্যন্ত। তারপর আর কোন কবি নেই, কবিতা নেই এ ভাষায়!!! এই নিদারুণ গোঁড়া মতবাদের উৎস কী? মাপকাঠিটাই বা কী? যদি ধরে নেই পাঠকপ্রিয়তা মাপকাঠি। তাহলে মাত্র দুটো বাংলা কবিতার উল্লেখ করব- "কেউ কথা রাখেনি"- সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় আর "তোমাকে পাওয়ার জন্য হে স্বাধীনতা"- শাসসুর রাহমান। দুই বাংলায় ব্যাপক পঠিত এইসব কবিতাগুলো সময়ের গন্ডি পেরিয়ে গিয়ে আজও তুমুল জনপ্রিয়। কিংবা ধরুন হেলাল হাফিজের "নিষিদ্ধ সম্পাদকীয়", "ফেরিওয়ালা" তুমুল জনপ্রিয় কবি নির্মলেন্দু গুণের অসংখ্য কবিতা, পূর্নেন্দু পত্রীর কথপোকথন- যেসব কবিতা মানুষের মুখে মুখে ফেরে। প্রচলিত ছন্দে রচিত না হয়েও এ কবিতাগুলো জনপ্রিয়তা পেল কোন সূত্রে? আর যদি আপনি বলেন ওসব বাদ- "আমি যা বলব তাই হবে। কোন তথ্যটথ্য মানি না।" তাহলে আর কোন কথা থাকে না। চুপচাপ মেনে নিয়ে কেটে পড়ব। সত্যি বলতে কী আপনার নিকটা দেখে আশান্বিত হয়েছিলাম। সমালোচনা থেকে কিছু শেখা যাবে ভেবে। কিন্তু হতাশ করে দিচ্ছেন ভাই। সমালোচনা আসলেই সহজ না। নিজস্ব মতবাদ প্রচার আর সত্যিকারের সমালোচনায় যোজন দূরত্ব। এই সরল সত্যটুকু বুঝলেই হয়।
      প্রত্যুত্তর . ২২ আগস্ট, ২০১৩
    • লুতফুল বারি পান্না আর একটা ব্যাপার- এই সংখ্যায় মহাসিন্ধুর সন্ধানে নামের একটা কবিতায় আপনি মন্তব্য করেছেন- "সমালোচনা থেকে দূরে থাকলাম। ভালই। সেটাও আদ্যোপান্ত গদ্যকবিতা। সেটায় কেনই বা সমালোচনা থেকে দূরে থাকলেন। কেনই বা ভালই মনে হল। আর মাহীকেই বা কেন সমালোচনার উপযুক্ত মনে হল সেটাও একটা রহস্য।
      প্রত্যুত্তর . ২২ আগস্ট, ২০১৩
    • রনীল থ্যাঙ্কস সিপাহী দা, ফর দ্যা "পোতাইন্না" পার্ট। হা হা হা ...
      প্রত্যুত্তর . ২৩ আগস্ট, ২০১৩
    • পন্ডিত মাহী আমি সমালোচক ভাইকে আর কিছু বলবো না। আপনার জন্য জবাব হয়ে রইলো আগামী সংখ্যার লেখা। অনলাইনে খুব সহজেই একজনকে অনেক কিছু বলা যায়। মান বিচার করে কথা বলুন। সাধারন ধারনা থেকে নয়। এখানে আরো অনেক বিজ্ঞ বিচারক, সমালোচক আছে। প্রসংশা নয়, সমালোচনা দিয়েই লেখালেখির শুরু। সমালোচনা মানতে না পারলে এই পর্যন্ত আসতেই পারতাম না। আলোচনা-সমালোচনার জন্য সবাই ধন্যবাদ। সামনের সংখ্যার জন্য অগ্রীম আমন্ত্রণ।
      প্রত্যুত্তর . ২৫ আগস্ট, ২০১৩
  • আবু ওয়াফা মোঃ মুফতি
    আবু ওয়াফা মোঃ মুফতি বেশ ভালো লাগলো! তবে, তৃতীয় স্তবকে 'আর' এবং 'অর্থাৎ' শব্দ দুটি অপ্রয়োজনীয় মনে হলো|
    প্রত্যুত্তর . ২১ আগস্ট, ২০১৩
  • নাসির আহমেদ কাবুল
    নাসির আহমেদ কাবুল হাল্কা অন্ধকারে স্মৃতি দোল খায়
    সিড়ি ভেঙ্গে ভেঙ্গে উপরে উঠতে উঠতে
    আমাদের পা কাঁপে -- মন ছুয়ে যাবার জন্য কথাগুলো অনন্য। শুভ কামনা প্রিয়।
    প্রত্যুত্তর . ২৮ আগস্ট, ২০১৩

advertisement