বিশ্বাসের শেষ শব্দ

উচ্ছ্বাস সংখ্যা

তানজির হোসেন পলাশ
  • ১১
  • ১২
সেই ছোট বেলায় একবার
বাবাকে বলেছিলাম লাল শার্ট আনতে।
বাবা হয়তো ভুলেই গিয়েছেন সেকথা
আমার মনে আছে।
বাবার মনে না থাকারই কথা,
কেননা বাবা আমাদের সাথে থাকতেন না,
মাঝে মাঝে আসতেন।
আস্তে আস্তে ভুলতে বসেছি বাবাকে
কিন্তু ভুলতে পারি নাই সেই লাল শার্ট।
এরপর আর কখনো লাল শার্ট পরা হয়নি,
যদি বাবা নিয়ে আসেন,
অবশ্য এখন আর আশাও করি না।

আজ থেকে বিশ বছর আগে
তখন সবেমাত্র বার কি তের তে পা দিয়েছি
মা আমাকে ফাঁকি দিয়ে চলে গেল
অনেক কেঁদেছিলাম।
হয়ত বুঝে অথবা না বুঝে,
শুধু ভেবেছিলাম
দুধ ভাত বোধ হয় আর খাওয়া হবে না,
দুষ্টামি করলে বোধ হয় বকা শোনা লাগবে না,
শীতের সকালে পুকুর পাড়ে বসে,
ঝাল মুড়ি খেতে খেতে আর পড়া হবে না,
এইটুকুতেই কষ্ট পেয়েছিলাম
তাই হয়ত চোখ দিয়ে অশ্রু বেরিয়েছিল।

এত বছর পর আজ!
মনে হচ্ছে রূপচাঁদার রং ফিকে হয়ে গেছে,
ছোট বালি মাছ বোধ হয় লাল হয়ে গেছে,
দুপুরের খাওয়াটা বোধ হয়
আর মুখে যাবে না কখনো।
ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন দু’বেলা অন্ন গ্রহণ,
সেই ব্রত নিয়েই পথ চলতে হবে আমাকে।
তপ্ত রোদের ঘেমে ফিরে আসার পর
কেউ হয়ত শাড়ীর আচল দিয়ে
মুখ মুছিয়ে দেবে না,
একটু আদর করে কাছে বসাবে না।
বিকেলে চায়ের কাপে হয়ত চুমুক
দেয়া হবে এক সাথে বসে,
সন্ধ্যের ডিম সিদ্ধ হয়তবা
মুখে আসবে না আর।
এমন কি গোস রুটি নিয়ে
অপেক্ষার প্রহর গুনবে না কেউ।

আমি ভাবছি! এখনো ভাবছি!
এ ভাবনা আমাকে কষ্ট দেয়নি।
আমি সবই মেনে নিয়েছি
আমার আজন্ম সত্য,
সত্যই রয়ে যাবে এই ভেবে।
কিন্তু একটা ফোন, শুধু একটা কণ্ঠস্বর
আমার সমস্ত লোমক‚পকে জাগ্রত করল
চোখ থেকে অশ্রু বের করতে দ্বিধা করলো না।
আমার এত বছরের লালিত স্বপ্নকে
মিথ্যা পর্যবসিত করলো।
আমি ভেবেছি ভালবাসা নেই আমার জীবনে
আমি কাউকে ভালবাসতে পারিনা।
সবই ভুল!
আমি ভালবাসতে পারি,
তবে ভালবাসা আমার জন্য নয়।
এই পৃথিবীতে আমি মৃত,
আমি আমার জন্য কিছু করি না,
আমার সব মানুষের জন্য,
কাউকে লাইসেন্স দেবার,
কাউকে বাবার অধিকার দেবার,
কাউকে বাঁচিয়ে রাখার।
আর আমি!
জানি না!
জানতে চাইও না!
জানবোও না!
কোনদিন, কখনো......।
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
ওয়াহিদ মামুন লাভলু বাস্তবতাকে তুলে এনেছেন কবিতায়। খুব ভাল লাগল। শ্রদ্ধা জানবেন।
নিভৃতে স্বপ্নচারী (পিটল) অনেক অনেক ভালো লেগেছে কবিতা, কবির জন্য রইলো আমার শুভ কামনা.
তানজির হোসেন পলাশ কবিতা আপনার জন্য ! ভালো লাগলে একটি মন্তব্য ! বেস এটুকুতেই খুশি .
biplobi biplob Darun likasan, bash abagmoy kotha malay shonibasitho, choya na choya, paoya na paoyar obichinno kobita. Valo laga janiya galam. & w/c.
ক্যায়স চমৎকার কথামালায় সাজানো অসাধারণ একটি কবিতা উপহার দিয়েছেন কবি । শুভকামনা নিরন্তর
প্রজ্ঞা মৌসুমী কবিতার নামটা ভীষণ মায়াকাড়া। লাল শার্ট না পাওয়া, মায়ের হাতে দুধ-ভাত খেতে না পারা কিংবা এক কন্ঠস্বরে সবকিছু লোটপাট হয়ে যাওয়া ছেলেটা ছুঁয়ে গেল। নারী বলেই এই বিদীর্যমাণ অনুভূতি তা না; কবির লেখার জোরেই এমন হল। কবিতা ভাসমান করতে যতটুকু জল দরকার কবিতায় পেলাম। ভালো থাকুক কবি এবং কবিতারা।
তানজির হোসেন পলাশ আর আমি! জানি না! জানতে চাইও না! জানবোও না! কোনদিন, কখনো......। পড়াবেন, অবশ্ই পড়বেন, না পড়লে নিশ্চয়ই মিস করবেন। আমাকে! আমাকে! আমাকে!
Abdul Mannan কি চমৎকার এক ভাবনার প্রকাশ ঘটিয়েছেন । কি সুন্দর কবিতার বক্তব্য , 'আমি আমার জন্য কিছু করি না, আমার সব মানুষের জন্য' । আমার পাতায় আসবেন .......
তানজির হোসেন পলাশ আমি চেষ্টা করেছি কিছু একটা করার। আপনাদের ভাললাগায় আমি ধন্য।
ঝরা পাতা আমি ভালবাসতে পারি, তবে ভালবাসা আমার জন্য নয়। ---- অসাধারণ লাগল এই লাইন দুটি... শ্রদ্ধা :)
তানজির হোসেন পলাশ আমিও ভালবাসতে পারি, তবে ভালবাসা আমার জন্য নয়। - এটি হলেই ভালো হত। পড়ার জন্য ধন্যবাদ।
দীপঙ্কর বেরা Uchhwase basuk jibon bhalo laglo suvechha
তানজির হোসেন পলাশ অশেষ ধন্যবাদ দিলাম পাঠের জন্য।

২২ নভেম্বর - ২০১১ গল্প/কবিতা: ১ টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের আংশিক অথবা কোন সম্পাদনা ছাড়াই প্রকাশিত এবং গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী থাকবে না। লেখকই সব দায়ভার বহন করতে বাধ্য থাকবে।

প্রতি মাসেই পুরস্কার

বিচারক ও পাঠকদের ভোটে সেরা ৩টি গল্প ও ৩টি কবিতা পুরস্কার পাবে।

লেখা প্রতিযোগিতায় আপনিও লিখুন

  • প্রথম পুরস্কার ১৫০০ টাকার প্রাইজ বন্ড এবং সনদপত্র।
  • ্বিতীয় পুরস্কার ১০০০ টাকার প্রাইজ বন্ড এবং সনদপত্র।
  • তৃতীয় পুরস্কার সনদপত্র।

আগামী সংখ্যার বিষয়

গল্পের বিষয় "একাকীত্ব”
কবিতার বিষয় "একাকীত্ব”
লেখা জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৫ মে,২০২১