বুক বেঁধেছিল ওরা-
কৃষক, শ্রমিক, মজুর ও খেটে খাওয়া মানুষেরা,
বুক বেঁধেছিল ওরা-
অবহেলিত, বঞ্চিত, শোষিত, অত্যাচারিত মানুষেরা।
বুক বেঁধেছিল ওরা-
মৌলিক অধিকার ও বাকস্বাধীনতা বঞ্চিতরা,
বুক বেঁধেছিল ওরা-
মুক্তির চেতনা রন্ধ্রে রন্ধ্রে ধারক ও বাহকেরা।
বুক বেঁধেছিল ওরা-
একদিন হব স্বাধীন গাইবো মুক্ত বিহঙ্গের গান।
দেখিব নিষ্পাপ শিশুর পরিতৃপ্তির হাসি
দেখিব হারানো ছেলেকে খুঁজে পাওয়া মায়ের হাসি।
কিন্তু হায়-
মুক্তির চেতনায় স্বপ্নে দেখা এই কি সেই দেশ-
যেথায় মুক্তিযোদ্ধার হাতে ভিক্ষার ঝুলি, গায়ে ছিন্ন বস্ত্র
যেথায় ন্যায়ের ঝান্ডাধারীদের হতে হয় সর্বশান্ত।
কিন্তু হায়-
মুক্তির চেতনায় স্বপ্নে দেখা এই কি সেই দেশ-
যেথায় গুম, হত্যা, সন্ত্রাস, দূর্ণীতিই নীতি
যেথায় রাষ্ট্রযন্ত্রের যাঁতাকলে মানবাধিকারের আকুতি।
কিন্তু হায়-
মুক্তির চেতনায় স্বপ্নে দেখা এই কি সেই দেশ-
যেথায় প্রতিদিন রক্ত ঝরে ভীনদেশী হানায়
যেথায় দেশপ্রেমের চেতনা প্রতিনিয়ত মুখ লুকায়।
ভাঙ্গা তীরে দাঁড়িয়ে তবুও বুক বাঁধি-
দাঁড়াবে বাংলাদেশ, দাঁড়াতেই হবে একদিন
যেদিন ভেসে যাবে দালালেরা, ভেসে যাবে শোষকেরা
মুক্তির ঝাণ্ডা হাতে একদিন দাঁড়াবেই দেশপ্রেমিকেরা ।।