অদ্ভুত শিহরণ খেলে যাচ্ছে দেহে মনে
ক্ষণে ক্ষণেই রক্ত গরম হয়ে যাচ্ছে
সবাই অপেক্ষা করছে সঠিক সময়ের
শুধু আমি পারছিনা

বাতাসে ভেসে বেড়াচ্ছে চিত্কার
মাটিতে রক্তের ছোপ ছোপ দাগ
অসহ্য লাগছে চারিদিকের বিভত্সতা
বিদ্রোহ করতে চাইছে আমার সত্তা


অনেকদিন হলো মায়ের রান্না খাইনি
অনেকদিন হলো শুনিনা কোনো গান
এবার গিয়ে একটা শাড়ি কিনে দেব
লাল সবুজ শাড়িতে অপূর্ব মা

কাল ঘায়েল করেছি পশুদের
জোছনার আলোয় স্নান করেছি শান্তিতে
রুখে দেব তাদের হর্ষ ধ্বনি
রক্ত দিয়ে বাঁচাব মাটিকে

হাসব আবার স্বাধীন দেশে
গলা খুলে গান গাইব
মাকে আর কষ্ট পেতে দেবনা
সকাল হবেই একদিন জানি আমি