আমি বায়ান্ন বলছি,
জানি তোমরা আমায় ভুলে যাওনি।
তাইতো ফেব্রোয়ারী এলেই
তোমাদের চোখে দেখি শোকের ছায়া
একটি মাসের জন্য,
২১ তারিখ এলেই প্রভাতফেরীতে বেরিয়ে পর
শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে বুকে কালো ব্যাজ ঝোলাও
একটি দিনের জন্য।

আমি বায়ান্ন বলছি,
দেখো আজো মিছিল হয়,
প্রকম্পিত হয় রাজপথ স্লোগানে স্লোগানে
আজো রক্ত ঝরে মিছিলের বুক থেকে
কাঁদানো গ্যাসের ঝাঁজ আজো আছে
শুধু "রাষ্ট্রভাষা বাংলা চাই" শ্লোগানটিকে
আর মিছিলে আনতে হয়না,
তা এখন ইতিহাসের পাতায় সংরক্ষিত।

তোমরা যাকে স্লোগান বলবে আমার কাছে তা শ্লোগান নয়
এটি কোন স্লোগান ছিলনা, এটি কখনো শ্লোগান হতে পারেনা
এটি ছিল বুকের ভিতর জমাট বাধা একটি কষ্টের নাম
ছিল একটি আর্তনাদের নাম, যে কষ্টটুকু মুছে দিতে
সকল বাধা ছিন্ন করে সকল আইন পদতলে মারিয়ে
মায়ের মুখের বুলি রক্ষা করার আশায়, সেঁকল ভাঙার নেশায়
নিজের বুকের তাজা রক্তে কালো পিচ-ঢালা পথে
আলপনা এঁকেছেন সাহসী তরুনদল।
যার ফল আজ তোমাদের হাতে।

আমি বায়ান্ন বলছি,
আমি আর থাকতে চাইনা বন্ধী ইতিহাসের পাতায়
আমি আর থাকতে চাইনা তোমাদের অবহেলায়
শুধু একটি দিন বা একটি মাস থাকতে চাইনা তোমাদের স্মরণে
আমি থাকতে চাই সর্বদা তোমাদের মননে।

আমি জানি,
তোমাদের মিশতে হবে মডার্ন যুগের সাথে
তোমাদের স্মার্ট হতে হবে, তাই বলে নিজের ভাষা বিকৃত করে কেন?
কেন নিজের ভাষার উপর আজ অন্য ভাষার প্রভাব?
তাহলে-কি সালাম, রফিক, বরকতদের রক্তের কোন দাম নেই?
তোমাদের কাছে ২১শে ফেব্রোয়ারী অতিপরিচিত হতে পারে কিন্তু
৮ই ফাল্গুন তোমাদের কাছে অপরিচিত একটি নাম।
তোমরা মনে রেখেছ আমাকে ১৯৫২ কিন্তু
ভুলে গিয়েছ তোমাদের ১৩৫৮।

আমি বায়ান্ন বলছি,
আরেকটি বায়ান্ন আমি চাই না।
আমি ২১শে ফেব্রোয়ারী শুনতে চাইনা, শুনতে চাই ৮ই ফাল্গুন,
১৯৫২এর মাঝে আমি শান্তি পাইনা তাই আমি ১৩৫৮ হতে চাই।