আমি সূর্যকেন্দ্রিক রশ্মিতে ভিজেছি,
কিন্তু দেখো আমি অক্ষত! ঝলসে যাইনি।
পাহাড়ের বুক চিড়ে ঝর্ণা বয়ে আসে,
তেমনি তুমি এসেছিলে জীবনে।
কিন্তু কেন? আমিতো নিমন্ত্রণ দেই নি।
বহুদূর থেকে শোষণ করেই যাচ্ছে ভূপৃষ্ঠের জলকে
দূরপাল্লার ঐ চাহনিযুক্ত মেঘ,
আমিও পারতাম তোমাকে সেভাবে…
কিন্তু ভয় হতো!
যদি আমার চাহনির সর্বশ্রেষ্ঠ জীর্ণ দেহটি
ভূপৃষ্ঠ থেকে সর্বকালীন বিলীন হয়ে যায়।
কিন্তু সেই তুমিই আজ ইহলোক থেকে
আমাকে চিরতরে মিটিয়ে ফেলবার চেষ্টায় মত্ত।
বাধা দেবো না, মিটিয়ে দাও তবে…
আজ না-হয় তোমার জন্যই বিলীন হয়ে যাবো।
ঝলসে যাবো তোমার ছলনাময়ী চাহনিতে।