শুনেছি ভূত নিশাকালে ঘুরে বেড়ায়-
মাঠে প্রান্তরে,কখন-সখন ভুল ক্রমে
আসলে আসে শহরে, নয়ত এটা
ওদের পছন্দের তালিকায় নেই-
বলা বাহুল্য শহরে আসা ওদের ভয়ের তালিকায়।।

শুনেছি ওরা ঠাকুরদাদার কালে প্রায়ই চেপে বসত মানুষের ঘাড়ে
আজ সে নিছকই কল্পনা।
কল্পনার মাঝে তবু এতোটুকুও বাস্তবতা থাকতে পারেনা
একটা ভূত কি থাকতে পারেনা—
যে চেপে বসবে মানুষের ঘারে, যার ভভয়ঙ্করতায়
সোনা এবং পাথরের টুকরো –
পাবে একই রূপ
আর সেই রূপটি হবে---সুন্দর ।
যার ক্ষমতায় মানুষ আর মুরগি
একই রূপ পাবে । একই ক্ষমতা ।
কখনও কি এমন একটা ভূত চেপে বসতে পারেনা
মানুষের ঘাড়ে,
যার ডাক নাম মনুষ্যত্ব
যার আছে একটা লৌকিক ক্ষমতা;
সমতা সৃষ্টির ক্ষমতা।।