বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftসাহিত্য ব্লগ

হিমু এবং অন্ধকার

লুতফুল বারি পান্না

  • advertisement

     

     

    এক.

    পরীবাগ থেকে শাহবাগের দিকে যাচ্ছি আর ভয়ে ভয়ে এদিক সেদিক তাকাচ্ছিহরতালের কারণে রাস্তায় লোকজন কমভয়ে ভয়ে তাকানোর কারণ- আমাকে দেখলেই আশেপাশের কোন মেয়ে বা ভদ্রমহিলা কোন না কোন সাহায্য চেয়ে বসবেআমার ভেতরে সম্ভবত পিয়ন বা আর্দালি টাইপ একটা ব্যাপার আছেনিতান্ত অপরিচিত ভদ্রমহিলারাও আমাকে তুই তুমি করে কোন কাজ করে দেয়ার জন্য বলতে তিল পরিমাণ দ্বিধাগ্রস্ত হন নামনে হচ্ছে আমার ভয় অমূলক, তেমন জরুরী কোন বিষয় না থাকলে হরতালে মহিলারা ঘর থেকে বের হন না

     

    শাহবাগে রাস্তা আটকে একটা মিছিল বা পথসভা কিছু হচ্ছেদূর থেকে শুনছি বলে আন্দাজ করতে পারছি না- হরতালের পক্ষশক্তি না বিপক্ষশক্তিদেশ এখন নানারকম পক্ষ-বিপক্ষ শক্তির শক্ত ঘাঁটিকে কখন কোন শক্তি সেটাই বিবেচ্য- সময়ের অবস্থানের ওপরে বক্তব্য বদলে যাবেএকই ব্যক্তি আজকে হরতালের পক্ষে গলা ফাটাবেন, কাল হরতালের বিপক্ষে শক্ত অবস্থান নেবেনআমাকে অবশ্য আরও একটা গুঢ় তত্ব দিয়েছিল টোকাই ফুলমিয়া

     

    ফুলমিয়ার বয়স তেরময়লা চটচটে চেহারার কারণে- কোন ধরনের ফুলের সাথে তাকে মেলানো দুরূহতবে সবসময়ে ন্যাড়া হয়ে থাকার জন্য চেহারায় খানিকটা পাপড়ি ছেঁটে ফেলা কদমফুলের ভাব আছেসচরাচর ফার্মগেট এলাকায় থাকেবাবা নাই, মা আরেকজনকে বিয়ে করেছেসৎ বাবা তাকে সহ্য করতে পারে নাজীবিকার তাগিদে নানান ধরনের কাজকর্ম করেহরতালে অনেক শ্রমজীবী মানুষের নাভিশ্বাস উঠলেও ফুলমিয়ার পোয়া তেরফুলমিয়ার সাথে এক রাতে ফার্মগেটে পরিচয় হয়েছিলঘটনাক্রমে তার একটা ইন্টিমেট এবং এক্সক্লুসিভ ইন্টারভিউ নেবার সুযোগ হয়েছিল

     

    তার ভাষ্যমতে বেশীরভাগ ছোটখাটো মিটিং-মিছিল পিকেটিং এ ভাড়ায় খাটা লোকজন পাওয়া যায়একই লোক আজকে এ দলের হয়ে কাজ করল তো কালকে বি দলেরসব কাজের রেট করা আছে আর রেট অনুযায়ী কাজ করার মানুষছোট বলে ফুলমিয়া শুধু পটকা মারার কাজ পায়বড় হইলে রড চাপাতির কাজ পাবেতাতে নাকি টাকা বেশীআর বিরাট সম্মানএক্ষুণি কেন সে বড় হয়ে উঠে বিরাট সম্মান অর্জন করতে পারছে না এই নিয়ে ফুলমিয়াকে খুবই হতাশ মনে হল

     

    শাহবাগে হরতালবিরোধী মিছিল শেষে এক নেতা গলার রগ ফুলিয়ে বক্তৃতা দিচ্ছেভিড়ের মধ্যে লাঠি চাপাতি হাতে কয়েকজনকে দেখা যাচ্ছেসংগে পুলিশের এক দলআমি তাদের মধ্যে গিয়ে দাঁড়ালামভিড়ের মধ্যে কয়েকজন মেয়েকেও দেখা যাচ্ছেমেয়েরা এখন আর ফেলনা নয়ফুল মিয়ার কথার সত্যতা যাচাই করার জন্য আমি একজনকে জিজ্ঞেস করলাম-

     

    -           আপনাকে সেদিন হরতালের পক্ষের একটা মিটিং-এ দেখেছিলাম না

     

    ছেলেটা বিষদৃষ্টিতে আমার দিকে তাকিয়ে ওজন মাপার চেষ্টা করছেতার চোখে ঘৃণাএক্ষুণি বিরাট ক্যাচাল লেগে যাবার সম্ভাবনা আছেমনে হচ্ছে আমার হিমুলীলা অতি অল্প সময়ের মধ্যেই সাঙ্গ হতে যাচ্ছেছেলেটা কিছু বলার আগেই ছবির হাটের দিক থেকে হরতালের পক্ষের একটা জঙ্গি মিছিল এসে হাজিরমুহূর্তে একটা টানটান যুদ্ধের পরিবেশ তৈরি হয়ে গেলদলের মধ্যকার বিশেষ বাহিনী পুলিশী প্রহরায় লাঠি চাপাতি হাতে তেড়ে গেলবিশেষ বাহিনীর মধ্যে আমার সাবজেক্টও মুহূর্তে সামিল হয়ে গেলউত্তেজিত অবস্থায় ধাক্কাধাক্কিতে একটা মেয়ে ছিটকে পড়ে গেলকারো সেদিকে খেয়াল নাইকয়েকজন তাকে মারিয়ে গেলআমি ছুটে গিয়ে মেয়েটাকে আড়াল করে দাঁড়ালামকয়েকবার আমাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়া হললাথি, রডের ঘাও খেতে হল কয়েকবারযুদ্ধংদেহীরা চলে যাবার পর মিছিলের একটা ছেলের সাহায্যে মেয়েটাকে পিজিতে নিয়ে যেতে সক্ষম হলাম

     

    এমারজেন্সিতে ডিউটিরত ডাক্তার কিছুক্ষণ তীক্ষ্ণচোখে তাকিয়ে বললেন,

    -           এই রোগীকে ভর্তি করা যাবে নাএই মেয়ে পিকেটিং করতে গিয়ে আহত হয়েছে মনে হচ্ছে

    -           স্যার উনি হরতালবিরোধী মিছিলে ছিলেন

    -           আগে বলবেন তো, ধরুন ধরুনঅনেক ব্লিডিং হয়েছেরক্ত দিতে হবেআপনি ওনার কে হন?

    -           কেউ না স্যার, রাস্তায় পড়েছিলঅনেক কষ্টে তুলে এনেছি

    -           ওনার আত্মীয়স্বজনদের খবর দেয়া হয়েছে?

    -           সময় পেলাম কোথায়? তাছাড়া পরিচয়ই তো জানি না

     

    আমার সঙ্গী ছেলেটা যথেষ্ট দূরদর্শী বোঝা গেলমেয়েটাকে তুলে আনার সময় ওর হ্যান্ডব্যাগটাকেও তুলে এনেছেভেতরে মোবাইল পাওয়া গেলছেলেটাই মোবাইলে খবর দিচ্ছেআমি এতক্ষণে রোগীর দিকে তাকালামএখানে সেখানে থেঁতলে গেছে, তারপরও অসম্ভব লাবণ্যময় একটা মুখপোশাক আশাকও সেইরকমএই মেয়েকে এই মিছিলে ঠিক মানাচ্ছে নাসে কি আসলেই মিছিলে ছিল? আধ ঘন্টার মধ্যেই মেয়ের একগাদা আত্মীয়স্বজন এসে হাজির

     

    -                     মা কী হয়েছে তোর?

     

    বলতে বলতে যে ভদ্রলোক উদ্বিগ্ন মুখে এগিয়ে এলেন তাকে বেশ ইনফ্লুয়েন্সিয়াল মনে হচ্ছেসঙ্গের বেশ কয়েকজন মানুষজনকে দেখা গেল স্যার স্যার বলে তাকে তোয়াজ করতেহরতালের মধ্যে এত অল্প সময়ের মধ্যে এতগুলো মানুষকে নিয়ে হাসপাতালে চলে আসা এনার পক্ষে সম্ভবআমি নিশ্চিন্ত হয়ে এক ফাঁকে কেটে পড়লাম

     

    দুই.

    -           আরে হিমু নাএই হিমু, দাঁড়া

     

    মাথায় হিজাব পড়া এক ভদ্রমহিলাতার চোখেও একটা গাঢ় সানগ্লাসপ্রাইভেট কারের কাঁচ নামিয়ে আমাকে ডাকছেনতাকে চেনা চেনা লাগছে, কিন্তু চিনতে পারছি নাতিনি অবশ্য আমার চেনা না চেনার তোয়াক্কা না করে কঠিন কন্ঠ্যে হুমকি দিলেন- এক্ষুণি গাড়িতে উঠে পড়তোর রাস্তায় হাঁটাহাঁটি বার করে দিচ্ছি

     

    আমি তাকে চিনে ফেলেছি এমন ভান করে বললাম- অবশ্যই গাড়িতে উঠবো তবে এই মুহূর্তে ভীষণ ইম্পর্টেন্ট একজন মানুষের সাথে অ্যাপয়েন্টমেন্ট আছেতিনি আমাকে বাসায় নিমন্ত্রণ করেছেনআমি পরে আপনার সাথে দেখা করছি

     

    তিনি গম্ভীর হয়ে বললেন- তোর ইম্পর্টেন্ট লোকটা কে? কোন মন্ত্রী? তোর সাথে তো এমপি মিনিস্টারদের লিংক আছে শুনেছি

     

    -           জি না, তিনি মেছকান্দর মিয়া

    -           মেছকান্দর মিয়াটা আবার কে? কি করেন?

    -           তিনি একজন মহান পুরুষজীবিকার জন্য ভিক্ষাবৃত্তি করেনতার একটা ইচ্ছাপূরণ পাথর আছে সেটাকে সঙ্গে নিয়েই ভিক্ষাবৃত্তি করেনসঙ্গে ইচ্ছাপূরণ পাথর অথচ তিনি ভিক্ষা করছেন- ইন্টারেস্টিং নয়?

     

    তিনি রাস্তায় নেমে এসে স্যান্ডেল খুলে হাতে নিয়ে বললেন- ফাজলেমি হচ্ছেতোর ফাজলেমি বার করছিইচ্ছাপূরণ পাথর এখন তোর মাথায় ভাঙবরণরঙ্গিণী মূর্তি দেখে মুহূর্তে তাকে চিনে ফেললামমেরিনা খালামায়ের চাচাতো বোনআমার সঙ্গে খুবই ভাব ছিলবহুদিন যোগাযোগ নাইএকদা স্মার্ট, হার্টথ্রব এই তরুণীর জন্য কয়েকটি ছোটখাটো ট্রয় নগরী ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল

     

    আমি ভয় পাওয়ার ভান করে বললাম, তোমার একি হালতালেবান প্রশিক্ষণ নিয়েছ নাকি?

     

    -           হুম নিয়েছিবাসায় চল তোকে কতল করা হবে

     

    আমি সুবোধ বালকের মত সুড়সুড় করে গাড়িতে উঠে বসলাম

     

    মুনির খালুর সাথে অনেকদিন পরে দেখা হলতিনি অন্যান্য খালু সাহেবদের মত নাকিঞ্চিত জলি প্রকৃতিরআমাকে দেখে বললেন, হ্যালো মি. মহাপুরুষ আপনার হাঁটাহাঁটির অগ্রগতি কতদূরঢাকা শহরের সবগুলো গলি উপগলি ফিনিশ হয়ে গেছে?

     

    -           গলিগুলো মোটামুটি শেষম্যানহোলের ভেতরটা এখনো ট্রাই করা হয়নিঅচিরেই শুরু করে দেব

    -           গুডশেষ হলে জানাবেনআপনার জন্য একটা ভিক্টরী ল্যাপের আয়োজন করা হবে

     

    খালা হুট করে ঢুকে বললেন, এক্ষুণি ওর পেছনে লাগলে? খালু হেসে বললেন, ভয় পেওনাতোমার ভাগ্নে কঠিন চিজতার পেছনে লাগলেও সুবিধা করা যাবে নাখালা আমার হাত ধরে ভেতরে নিতে নিতে বললেন, তোর সাথে আমার জরুরী কথা আছে ভিতরে চলআমি খানিকটা বিভ্রান্ত হয়ে খালার পেছনে বের হয়ে গেলাম

     

    -           শোন, তোকে আর আমি এভাবে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়াতে দেব নাতোর খালুর সাথে কথা বলেছি, তুই উত্তরায় আমাদের নতুন ফ্যাক্টরির ম্যানেজমেন্টের দায়িত্ব নিবি

    -           অবশ্যই নেববেতন টেতন কেমন দেবে?

    -           তুই যা ভাবতে পারছিস তার চেয়েও অনেক বেশীতাছাড়া ফ্যাক্টরির নিজস্ব কোয়ার্টার আছে, তুই সেখানে থাকবিবাইরের লোকের হাতে দায়িত্ব দিয়ে ভরসা করতে পারছি নাদুদিনের মধ্যে চুরি করে ফাঁক করে দেবে

    -           নিজেদের লোকেরাই চুরিটা আরাম করে করতে পারেবাইরের লোকের এত সাহস হয় না

    -           করলে করবিতুইতো ভাল থাকবিতাছাড়া তোর বিয়েটিয়েও করা দরকারতোকে আর মহাপুরুষগগিরি করতে দেয়া যাবে নাতোর বাবা ছিল একটা সাইকোপ্যাথতুইও ক্রমে তাই হয়ে যাচ্ছিসআর নয়, এনাফ ইজ এনাফ

    -           অনেক দেরী হয়ে গেছে খালাইটস টু লেট

    -           মোটেই দেরী হয়নিএখনি সময় তোর পায়ে শিকল পরাবারবি রেডি

    -           ইয়েস বস

    -           ফাজলেমি করবি নাইয়েস বস মানে কী?

    -           আগে থেকেই প্রাকটিস করে নিচ্ছিবস হতে যাচ্ছ যখনবিয়ে করতে বলছ, মেয়ে টেয়েও দেখেছ নাকি?

    -           প্রতিদিনই তো দেখছিএকটা মেয়েকে আমার খুব মনে ধরেছেদেখবি নাকি?

    -           অবশ্যইমেয়ে কেমন? একটু ডাউন হলেই ভাল হয়আমার জন্য কোন আপ মেয়ে রাজী হবে বলে মনে হয় না

    -           রাজী হবে না মানে? এসব কী কথা! মেয়ে না শুধু মেয়ের চৌদ্দ গুষ্টি রাজী হবেতোর আর মেসটেসে থাকার দরকার নাইআপাতত এখানেই থেকে যাএক তারিখ থেকে উত্তরা সেটল হয়ে যাবিকালই মেয়েটাকে দেখাচ্ছি

    -           গুড তাহলে চট করে মেস থেকে ঘুরে আসিজিনিসপত্র নিয়ে পার্মানেন্টলি চলে আসছি

    -           মেসে যা আছে থাকওসব আর আনতে হবে না

    -           তা বললে তো হবে নামেসের ভাড়া বাকি আছে দিতে হবেতুমি চট করে হাজার ছয়েক টাকা দেও তোসব গোছগাছ করে সবার দোয়া নিয়ে আসিনতুন জীবন শুরু করতে যাচ্ছি

    -           টাকা দিচ্ছি, মেসের ভাড়া শোধ করে সোজা চলে আসবিকারো দোয়া নিতে হবে না

     

    তিন.

    মেস ম্যানেজার ইসকান্দার মিয়া গোমড়ামুখী টাইপেরসারাদিন বসে বসে ঝিমানো তার একমাত্র কাজরামগরুড়ের ছানা, হাসার মত অর্থহীন কাজ করার ব্যাপারে তাবংশে নিষেধ আছে আমি নিশ্চিত তিনি যদি লটারিতে এক কোটি টাকা জেতার সংবাদ পান তবে খবরদাতার দিকে কিছুক্ষণ বিরক্ত মুখে তাকাবেনমেসে ঢুকেই এমন একজন মানুষের সঙ্গে দেখা হওয়া শুভলক্ষণ নাইভনিং শোজ দ্য নাইটওনার সাথে ভিক্ষুক মেছকান্দর মিয়ার বেশ একটা মিল আছে। দুজনই রামগরুড় বংশের লোক। নামেও মিল আছে। বাই এনি চান্স উনি মেছকান্দর মিয়ার ভাইটাই নয়ত?

     

    -                     ইস্কান্দার ভাই কেমন আছেন?

    -                      

    তিনি বিরস মুখে তাকালেনউত্তর দেবার প্রয়োজন বোধ করলেন না

     

    -                     আপনার ভাই মেছকান্দর মিয়া কেমন আছেন?

    -                     ভাই কী ফাজলেমি করেন। মেছকান্দর মিয়াটা আবার কে?

    -                     তেমন কেউ নারে ভাই? আপনার মত দেখতে, পাথরের উপর বসে বসে ঝিমান।
    ইচ্ছাপূরণ পাথর।

    -                      

    ইস্কান্দর মিয়ার বিরক্তি চরমে উঠল। এবার একটু -নাটকীয় ভঙ্গীতে বললাম, মেস ছেড়ে চলে যাচ্ছি ভাইতিনি অবাক হয়ে তাকালেনতাকে আরও একটু ভড়কে দেয়া যাক

    -           দোয়া করবেন ভাই বিরাট চাকরি পেয়েছিঅনেক টাকা বেতনওরা কোয়ার্টার দেবে, গাড়ি দেবে

    -           ভাল

    -           এই নেন আপনার বাকি মেস ভাড়া ছয় হাজার টাকা

    তিনি এবার ব্যাপক ভড়কালেনকিছুক্ষণ মুখের দিকে তাকিয়ে থেকে বললেন, সত্যি সত্যি চলে যাচ্ছেন?

    -           মিথ্যেমিথ্যি যাব কেন ভাই?

    ইসকান্দার মিয়া আচমকা হাউমাউ করে কেঁদে উঠলেন

    -           হিমু ভাই টাকা দিয়া আমাকে অপরাধী করবেন নাআপনি যেখানে খুশী যানটাকা দিতে হবে নাআমার এই অনুরোধটা রাখেন

     

    পরিস্থিতি ভারাক্রান্ত হয়ে উঠছেইস্কান্দার মিয়ার মত মানুষ আচমকা এমন আচানক কান্ড করে বসবেন আন্দাজ করতে পারিনিমানুষ চেনা বড়ই দুস্করআমি রাস্তায় নেমে আসলামখালার বাসা থেকে আনা চটের ব্যাগে ছয় হাজার টাকা রেখে কাঁধে ঝুলিয়ে রেখেছিপাঞ্জাবীর পকেট নেই, কী আর করাসামনে অনেকদিন হাটা হবে না, হাত পায়ে জং ধরে যাবার সম্ভাবনাশেষবারের মত হেটে নেইপথে নেমে পথকে বললাম, আবার হবে তো দেখা, এ দেখাই শেষ দেখা নয় তো

     

    দোয়েল চত্বরের কাছে বিকট শব্দে একটা বাসে আগুন ধরে গেললোকজন ছুটোছুটি করছেজিজ্ঞেস করে জানা গেল কাল হরতাল তাই বাসে আগুন ধরানো হয়েছেইদানীং হরতালের আগের দিন থেকেই প্রি অ্যাকশন শুরু হয়ে যায়গণতন্ত্রের অতন্দ্র প্রহরীরা জনগণের মঙ্গল চিন্তায় ব্যাপক খাটাখাটনি করছেন'জন মারা গেছেন দেখার জন্য আমি বাসের দিকে এগিয়ে গেলামপিছনে টোকা টের পেয়ে না তাকিয়েই বললাম, চলুন বিস্ফোরণের ফলাফল একটু সরেজমিনে তদন্ত করে যাই

     

    -           অবশ্যই, নিজের হাতের কাজ টেস্ট করবেন না সেটা হয় নাকি? চলুন আমিও যাই

     

    নেমপ্লেটে লেখা আছে সারওয়ারমেট্রোপলিসের ইউনিফর্মমনে হচ্ছে আজ রাতে আর মেরিনা খালার কাছে ফিরে যাওয়া হবে নাসরি খালা তোমার চাকরী আর বউ আপাতত ওয়েটিং লিস্টে থাকুকসারওয়ার সাহেবের ঠাণ্ডা ভাবভংগী ভাল ঠেকছে নাভোগাতে পারেকবে ছাড়া পাব বলতে পারছি না

     

    -           আপনার ব্যাগে কী?

    -           ছ হাজার টাকানেবেন নাকি?

    -           কী বললেন? ঘুষ সাধার অপরাধে আপনাকে প্রেফতার করা হলআপনার নাম কী?

    -           হিমু

    -           শুধু হিমু?

    -           হিমালয় থেকে হিমুআপনি চাইলে টাইগার হিমু নামে ডাকতে পারেন

    অফিসারের চেহারায় 'পেয়েছি বাছাধন' টাইপের হাসি দেখা গেলগোঁফে তা দিয়ে বললেন, খালি পা কেন?

    -           আমার লাইনে জুতা পরার নিয়ম নেই

    -           ব্যাগে টাকা কেন? পেমেন্ট আগেই পেয়ে গেছেন?

    -           কিসের পেমেন্ট?

    -           বুঝতে পারছেন না?

    -           জি না

    -           থানায় চলুন, প্রপার ডলা পড়লেই মাথা ডিস্টিলড ওয়াটারের মত পরিষ্কার হয়ে যাবে

    -           জি আচ্ছা

     

    সারোয়ার সাহেব রমনা থানার নতুন ওসিতিনি নিজের চেয়ারে বসে গোঁফে হাত বুলাচ্ছেনমনে হচ্ছে আর একটা ঝড় আসার পূর্বলগ্ন

     

    -           বোমাটা কে ফাটাতে বলেছে?

    -           প্রশ্ন বুঝতে পারছি না

    -           ঠিক আছে মাথা পরিষ্কার করার ওষুধ দিচ্ছি

     

    তিনি উঠে আসার ভঙ্গী করলেনমনে হচ্ছে ওষুধের ব্যবস্থা করতে যাচ্ছেনমনে মনে শঙ্কিত হয়ে উঠছি- কারণ ওনার ভাবভংগী ঠাণ্ডাঅ্যাকশনের সময় এ ধরনের মানুষগুলো ভয়ংকর হয়ে ওঠেনঠিক এই সময় চশমা পড়া ভদ্রলোক এসে ঢুকলেনওসি সাহেব লাফ দিয়ে উঠে দাঁড়ালেন

     

    -           আসুন স্যারআপনি এখানে? ফোন করলেই তো হত

    -           কনফিডেন্সিয়াল ব্যাপার সারওয়ারফোনে বলা ঠিক হত নাআলাদা কথা বলা দরকারও কে?

     

    ভদ্রলোক তীক্ষ্ণ চোখে তাকিয়ে আছেনআমারও তাকে চেনা চেনা লাগছেমনে করতে পারছি নাতিনিই আগে মুখ খুললেন

     

    -           আপনাকে কোথায় যেন দেখেছি?

    -           মনে হয় হসপিটালে?

    -           রাইট, আপনি সেই লোক আমার মেয়েকে হসপিটালে নিয়ে এসেছিলেনকোথায় হারিয়ে গিয়েছিলেন বলেন তো?

     

    মনে হচ্ছে ছাড়া পেয়ে যাবভাগ্য এত তাড়াতাড়ি প্রসন্ন হয়ে উঠবে বুঝতে পারিনিতিনি ওসি সারওয়ার সাহেবকে নিয়ে পাশের রুমে চলে গেলেনফিরে এলেন ওসি সাহেব একাআমি ছাড়া পাবার প্রত্যাশায় উঠে দাঁড়ালামওসি সাহেব আমার কলার ধরে তুলে ধাক্কা মেরে হাজতে ঢুকিয়ে লক করে দিলেন

     

    হাজতে দুদিন কেটে গেলসারওয়ার সাহেবের দেখা নাইডলা দিতেও আসছে না কেউকাউকে খবরও দিতে পারছি নাতৃতীয় দিন সারওয়ার সাহেব থানায় এলেননিজেই হাজত খুলে আমাকে বের করলেন

     

    -           সরি হিমু সাহেব জরুরী একটা অপারেশনে বেরিয়েছিলামআপনার ব্যাপারে ডিসিশন নিতে পারিনিআমি খোঁজ নিয়েছি, আপনার নামে কোন এলিগেশন নেইআপনি যেতে পারেনদুদিন হাজতে থাকতে হয়েছেআই অ্যাম সরি ফর দ্যাট

    -           সরি হবার জন্য থ্যাংকসনা হলেও ক্ষতি নেইক্ষমতাবান মানুষদের সব কিছুই সুন্দরআপনার হাতে কি হয়েছে?

    -           অপারেশনে সামান্য স্ট্যাব হয়েছেতেমন কিছু নাবাই দ্য ওয়ে একজন কনস্টেবল বলছিল আপনার নাকি আধ্যাত্মিক ক্ষমতা আছে?

    -           জি নাআমি সামান্য মানুষআমার কোন ক্ষমতা নেই

    -           ওকে আপনার সাথে একটু রুড হয়েছিলামসরি ফর দ্যাটআপনি আসতে পারেন

    -           থ্যাংক ইউ স্যারবাই দ্য ওয়ে পুরান ঢাকায় ট্যারা সুলেমানের আস্তানা চেনেন তো?

    -           হোয়াট?

    -           এখন গেলে, মাত্র একজন লোক আছে পাহারায়বাচ্চাটা সুস্থ আছে

    -           হোয়াট?

    -           ওকে গুডবাই

    আমি ওসি সাহেবকে স্তম্ভিত করেদিয়ে সুট করে বেরিয়ে আসলামবেশীক্ষণ থাকলে আবারো আমাকে আটকে রাখার কুবুদ্ধি গজাতে পারে ওনার মাথায়

     

    চার.

    একটা মোবাইলের দোকানে গিয়ে খালার নম্বরে ফোন দিলামখালার বিরক্ত গলা শোনা গেল

     

    -           হ্যালো

    -           খালা পুলিশে ধরা খেয়েছিলামআজই ছাড়া পেয়েছিতোমার চাকরীটা এখনো আছে?

    -           তুই যে চাকরী করবি না সে আমি আগেই জানতামযা তোকে আর আমি আটকে রাখব নাতুই রাস্তায় রাস্তায় হেটে বিখ্যাত মহাপুরুষ হয়ে যারাস্তা তো অনেক হোল এবার ম্যানহোলের ভেতরে সেঁধিয়ে দেখে আসতে পারিসজায়গাটা তোর খারাপ লাগার কথা নাতুই হচ্ছিস গন্ধ গোকুলগর্ত ছাড়া তোর ভাল লাগবে কেন?

     

    -           রাগ কোরো না খালাসত্যি বলছি, আমি এখনি আসছি

     

    আমি ফোন রেখে খালার বাসার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দিলামহেটে হেটে যাচ্ছি বলে রাস্তায় কয়েকজনের সাথে দেখা করার পরিকল্পনা নিলামএকজন ফুলমিয়াফুলমিয়াকে পাওয়া গেল নাহরতালের সিজন, ফুলমিয়া তার ক্যারিয়ার ডেভলপমেন্টে ব্যস্ত আছেভিক্ষুক মেছকান্দর মিয়ারেও পাওয়া গেল নাসে তার ভিক্ষার পাথর সমেত উধাও হয়ে গেছেকি জানি হয়ত ইচ্ছাপূরণ পাথরের কেরামতি এখন তার আয়ত্তেখালার বাসায় পৌছুতে বেশ দেরী হয়ে গেল

     

    ভেবেছিলাম খালা রেগে ব্যোম হয়ে থাকবেতার বদলে এমন উষ্ণ অভ্যর্থনা পেলাম যা কল্পনারও বাইরেআমাকে দেখেই কলকলিয়ে বললেন, সাংঘাতিক একটা ব্যাপার ঘটে গেছে রেতোকে যে মেয়েটার কথা বলেছিলাম ওর ভাইপোকে দুদিন আগে কিডন্যাপ করা হয়েছিলআজ নাকি এক ফকির টাইপের মানুষের কথায় পুরনো ঢাকা থেকে ছেলেটাকে উদ্ধার করা হয়েছেআমাদের পাশের ফ্লাটেই থাকেনমেয়েটার বাবা ডিএস, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আছেনওরা কাউকেই বলেনিকিডন্যাপাররা নাকি কাউকে জানাতে নিষেধ করেছিলআজ পাওয়ার পরে আমাকে বললএকটু দাড়া ডেকে আনছি মেয়েটাকে

     

    -           এই সিনথি, সিনথি

     

    খালার পেছন পেছন আমিও ফ্লাট থেকে বের হলামপাশের ফ্লাটে নক করছেন খালাফ্ল্যাট থেকে মেয়ের বদলে গোফওয়ালা এক পুলিশ অফিসার বেরিয়ে এলেনআমাকে দেখেই তার মুখে হাজার পাওয়ারের বাল্ব জ্বলে উঠল

     

    -           আরে হিমু সাহেব, আপনি এখানে?

    -           বিশ্বাস করুন আমি কোন বোম ব্লাস্টিং বা চুরি ডাকাতির প্লান করছিনাজাস্ট খালার বাসায় এসেছি

    -           কি যে বলছেন, লজ্জা দেবেন না ভাইসময় করে থানায় চলে আসবেন গল্প করা যাবেসরি ভাই মাথার ঠিক নাইআপনি যাবেন কী, ঠিকানা বলুন আমিই আপনাকে নিয়ে যাবএই সিনথি ইনিই হিমু ভাই

    -           ইটস ওকে সারওয়ার ভাইআমিই যাব

     

    ওসি সাহেব তাড়াহুড়ো করে বেরিয়ে গেলেনসেদিনের হরতালে আহত মেয়েটাকে দেখতে পাচ্ছি, অবাক হয়ে মুখের দিকে তাকিয়ে আছে

     

    -           আপনাকে কোথায় যেন দেখেছি? আরে আপনিই তো শাহবাগে..

    -           জি নাআমি নই তিনি অন্য একজন

    -           কনফিউজ করার চেষ্টা করবেন নাআপনার পাঞ্জাবীর রং আর মুখটা সেদিন স্পষ্ট মনে আছেআপনি সেদিন কোথায় হারিয়ে গেলেন বলেন তোবাবা খুব খোঁজাখুঁজি করেছেন

     

    খালা হঠাৎ বেরিয়ে এসে বললেন, কি ব্যাপার পূর্ব পরিচয় আছে নাকি তোদের? ভালই হল, কি বল সিনথি? সিনথি নামের মেয়েটা লজ্জায় ঘন ঘন মুখের রং বদলিয়ে অপরূপ হয়ে উঠেছেখালা আমাকে আড়ালে ডেকে নিয়ে বলেছি তুই আবার গুবলেট করে দিস না। আমি ওদেরকে বলেছি তুই উত্তরার ফ্যাক্টরী দেখাশুনা করিস। ফিফটি পারসেন্ট শেয়ার। বললাম, খালা একটু বাড়াবাড়ি হয়ে গেল না। শেয়ার বলার দরকার কী ছিল? উনি মাইন্ড খাইতে পারেন- প্রায় শিরকি গুণাহর মত। যেখানে ওনার সাথে লাইফ শেয়ার করার কথা সেখানে..

     

    -                     ফাজলেমি রাখ। সেটা তোকে ভাবতে হবে না। শেয়ার আমি লিখে দেব।

    -                     খালুকে না বলে সেটা কী ঠিক হবে?

    -                     সে আমি বুঝব। ওটা আমার নামে। আর তোর খালু যে তোকে কী পরিমাণ পছন্দ করে তুই জানিস না।

     

    *************

     

    আজকের জ্যোৎস্না কী যে মায়াবী লাগছেআমি খালা খালু আর সিনথি ফ্লাটের খোলা বারান্দায় বসে জ্যোৎস্না দেখছিকাল হরতাল তাই রাত বারোটার আগেই শহর ঘুমিয়ে পড়েছেশহুরে জ্যোৎস্না তার ঝাঁপি খুলে অচেনা রূপ মেলে ধরেছে নিশ্চিন্তেহরতালের দুএকটা ভাল দিকের এটা বোধ হয় একটাআমি জানি কাল আবার পথের হিমু পথেই ফিরে যাবেহিমুরা কখনো কোন মেয়ের হাত ধরবে নাসেটা ভেবে  আজকের সময়টা নাইবা নষ্ট করলাম

     

     

     

     

advertisement