আমার গায়ের ঝরানো রক্ত মাখা ঘাম, তোমাদের অট্টালিকার
প্রতিটি ইটের ভাজে ভাজে, প্রতিনিয়ত সংগ্রাম করে যায় উচ্চ কন্ঠে,
কিন্তু তোমরা তা শুনতে পাওনা, সে কর্ণ তোমাদের নেই !
তোমরা তা অনুধাবন করতে পারনা, সে হৃদয় তোমাদের নেই !
তোমরা তা বুঝতেও চাওনা সে মন তোমাদের নেই !
তোমরা তাহাতে এতো ভার এনে দাও, যে ভার তখন
আর সে অট্টালিকা সইতে পারেনা, তখন সে আমাদের ঘাড়েই ভেঙ্গে পড়ে।
আমাদের পিশে মারে আমাদের নিয়তি, বিনিময়ে আমাদের যাহা দেও অন্ন খেতে, তোমাদের তাহা খরচ হয় এক রাতের লাল পানিতে। তবুয়ো আমরা
অবিরত তোমাদের তরে শ্রম ঢেলে যাই। আমাদের যে আর করার কিছু নাই,
তোমাদের পাতানো জালে প্যাঁচানো আমাদের জীবন। উপায় যে নেই,
নয়তো চুলোয় উঠেনা আমাদের ভাতের হাড়ী। অন্নের তালাশে
তোমাদের কাছেই ধর্ণা দিতে হয়, অমনই কঠিন প্যাঁচ
দিয়ে রেখেছো আমাদের। তবুয়ো আমরা মানুষ জীবন বাঁচাই চিরসংগ্রামে,
আর তাতেই বেঁচে আছো তোমরা, আর তোমাদের আভিজাত্য।
গর্বিত আমরা, জীবন শাশ্বত আর সত্যের উপর প্রতিষ্ঠিত।