অন্ধরাত্রির নিঃসঙ্গতায় আঁধারে একাকী কেউ একজন অপেক্ষা করে কোনো প্রিয়জনের জন্য। আঁধারই মুখিয়ে থাকে এই একাকী অনুভবকে প্রগাঢ় করার জন্য। তাই আমার লেখাটি ‘আঁধার’ বিষয়ের সাথে প্রাসঙ্গিক।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ৫ জুন ১৯৮০
গল্প/কবিতা: ২১টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - আঁধার (সেপ্টেম্বর ২০১৮)

প্রস্থান
আঁধার

সংখ্যা

সাদিয়া সুলতানা

comment ১৮  favorite ০  import_contacts ২৯৮
আমি থির তাকিয়ে তার চলে যাওয়া দেখি।
সে চলে যায় নিঃশব্দে
আর নিথর মাটিতে গেঁথে যায় তার পদচিহ্ন।
সে চলে যায়।
তার সামনে বেহিশেবী মহাকাল
আর পিছনে থাকে শুধু অপেক্ষার মায়াডোর।

শীতরাত্রির হিম ঝরে পড়ে গাছের পাতায়,
কুয়াশার ঘোরে অচল চোখ ঝাঁ ঝাঁ করে।
খেই হারায়।
জানে আজ রাত্রির আঁধারে আমি একা,
বিশ্বসংসারে আমি ভিন্ন কেউ নেই।
অদ্ভুত সময় এক!

একদিকে কষ্টগুলো ঝরাপাতার মতো খসে পড়ে,
আরেকদিকে চোখের কোণে জমে থাকা নুন জমানো গল্পগুলো
অন্ধরাত্রির নিঃসঙ্গতায় গলে যায়।
সে তবু ফিরে আসে না,
বাতাসের ভেজা শরীরে কেবল তার গন্ধ জুড়ে থাকে।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement