কতোদিন আমি যেন কবিতা লিখিনি,
হায় কবিতা কোথায় তুমি বলো তো দেখি,

পথঘাট শেষ করে ফিরে আসি আবার সেই চেনা পথের বাঁকে,
কিন্তু আমি যেন ভুলে গেছি আমার সে পথ,
টিয়া পাখি রঙা পোয়াতি জমিন,
কাক ডাকা ভোরে
কে ডাকে সেই অস্পষ্ট ¯^রে,
পেছন ফিরে তো দেখার সময় নেই,
হয়তো আমি আর আমিতে নেই,
বুকের ভেতর কষ্ট বাড়ে দিবানিশি,
পান্ডুলিপি করে না আর আয়োজন,
দূরের আকাশ ডাকে না মধুর সে নাম ধরে
বলে না এসো সূজন কবিতার দেশে তামাম যুদ্ধ শেষে,
নাম কি ভুলে গেছে রঙিন আনন্দের মুচ্ছনায়

আজ আমি কোথায় যাবো যাওয়ার তো পথ র“দ্ধ করেছে সময়
সত্যসত্যি আমরা কি সবাই সময়ের কাছে জিম্মি হয়ে আছি,

তারপরও বলবো কবিতা আমাকে টেনে নাও তোমার পাদদেশে
ডানা ভাঙা কবুতর জানে না আর উড়তে
হায় প্রেম এসো নদীর দেশে
লাবণ্য ভরা স্নিগ্ধ উঠোনে কতো ভালোবাসা ছড়িয়ে আছে
জানো না কি...

পতিসরে রবীন্দ্রনাথ আসে না বলে নাগর নদী হারিয়ে ফেলেছে দিশা
শেষ সীমাšে— এসে আমি যেন কবিতার কাছে বারংবার ছুটে আসি
তারপরও বলবো পতিসরে জীবনের তামাম নিশা...