ওসবে কান দেওয়ার দরকার নেই তোমার
উত্তরের আকাশে জমতে পারে অনেক ঘন কালো মেঘ
দমকা হাওয়ায় সাদা শিরিষের ডালও আচমকা ভেঙ্গে পড়তে পারে,
কিন্তু এই যে তোমার হাতে হাত রেখেছি
তার চেয়ে নিবিড় আর কি হতে পারে ?
কোন দ্বিধা নেই......
তোমার আঁচলে যখন ঢেকেছি আমার সকল পিছুটান,
তোমার ঈশারার প্রবল টানেই বেধছি যখন আকাঙ্ক্ষার লাগাম
মতদ্বৈততার সকল যৌগিকতাকে চলো একবার যাচাই করি
স্বর্ণকারের রাজঅম্ল তেজাব’এ।
মুখের উচ্চারণ তোমার কানে তরঙ্গ লাগাবে না হয়তো,
হয়তো লৌকিকতার পশরায় চোখের সামনে বসবেনা কোন‘বিপনি বিতান’
তবুও তুমি একবার ছুঁয়ে দেখো
আমার আবেগ তোমার অনুভবে কেমন আষ্টে-পৃষ্টে জড়িয়ে আসমুদ্রহিমাচল।
কিসের এতো দ্বিধা......।
তোমার ঘন অলক-কুঞ্জ যদি দোল খেয়ে যায়
আমাকে ছুঁয়ে যাওয়া দখিনায়,
ঠোটের পাপড়িগুলো যদি হটাৎকেঁপে উঠে
জলাশয়ে দাঁড়িয়ে থাকা নিঃসঙ্গশাপলা কুড়ি’র মত
উড়াও আঁচলতবে , হাতে নাও নাটাই
মাঞ্জাহীন সুতোয় চরক খাওয়া ঘুড়ি হওয়ার আগেই
আমাকে টেনে নাও মেরুতে তোমার,
চলো এভাবেই নিষ্ক্রিয় হই মৌল পরমানুর মতন
যে অর্বিটালে শুধু তুমি, আমি, একাকার......।