তিলোত্তমা!রূপ-কুমারী, নাম মেয়েটির মিথি
ঢেউ খেলানো দীঘল চুলে, নেইকো কোনো সিঁথি!
মুখখানি তার মায়াভরা, সবুজ শ‌্যামল মাঠ
মন জুড়ানো দুই চোখে তার শিশুর সরল পাঠ!
নীল দিগন্তের সেই কোটরে, শীতল ঝর্ণা নামে
কুসুম রঙের দেহাবরণ, ভাসছে সোনা খামে!
তার হাসিতে চাঁদের আলোয়, আঁধার কাটে রাত
রিনিঝিনি শঙ্খ নাচে, বিভূষণীর হাত!
সহপাঠীর মনের রাণী, ডানা কাটা পরী
কেউবা বলে ক্লিউপেট্রা, স্বর্গীয় অপ্সরী!
কন্ঠে তার বীণার সূরে, পাখির কলতান
বাঁকা ঠোঁটে মুচকি হাসি, মনাহতের বাণ!
মন ভুলানো আর কে আছে তাহার মত কেউ
হাঁটার পথে প্রলয় নাচন, রূপ সাগরের ঢেউ!
দেহের শোভায় নূরের ছটা, আঁধার পালায় দূর
আকাশ থেকে নেমে আসা জান্নাতী এক হুর!