দিগন্তের অরুন রশ্মি আজ কুয়াশার চাদরে বিলিন হয়ে গেছে।
উত্থাল সমুদ্রে যেন হুদ হুদের আঘাত,
উন্মুক্ত আকাশের পরির্বতে কূপমন্ডুকতার র্স্বগ,
অবিরাম জোনাকীর জ্বলতে থাকা আলোর র্স্পশ,
প্রতিফলনহীন ধ্বনির ভেসে যাওয়া গভীর অন্ধকারে।।
সে এক জীবন্মামৄত লতার স্তুপ অপুষ্টিকর,
বোটাখসা ফুলের মতই বেমানান।
তবুও তিমির তবুও জড়তা তবুও অচেতনে চেতনা
তবুও সবুজের ভিজে যাওয়া, অন্ধকারে।।
সুনামী অথবা মহাসেনের ভেসে আসা দুর্গন্ধ
হৃদ পিন্ডে প্রবল গতি সঞ্চারে।।
অসূর্যর্স্পশা প্রান্তরে তীক্ষ্ন ঢেউ এর প্রবাহ
শুধুই খরস্রোতা পলিহীন শুন্যতা
বিধ্বস্ত বিপ্রতীপ অথবা শুধুই বিপ্রকর্ষ।
ডানা মেলে উড়ার মুক্ত আকাশ নেই
নেই প্রজাপতির পাখা অন্ধকারে।।
ডাইনোসরের রেখে যাওয়ার মত ভবিষ্ত
হটাত করে ইবোলা সংক্রমন বেড়ে যাওয়া
অথবা সাম্প্রদায়িকতার তুঙ্গর্স্পশী গান
কটিন পাথরে শিহরন জাগায় অন্ধকারে।।
জেগে থাকা ভোরে কন কনে ঠান্ডা
তবুও জেগে আছি বরফের চাদরে।।