(শ্রদ্ধেয় অগ্রজ প্রথিতযশা কবি হেলাল হাফিজের কবিতার চরণ "'সংবিধান বুঝ, মানুষ বুঝ না?' পুনঃপাঠে এই কবিতা রচনায় সাহস জুগিয়েছে। কবিতাটি আমি হেলাল হাফিজ ভাইয়ের চরণে উৎসর্গ করলাম)


ক্ষমতা বোঝ, শাসন বোঝ
সরকারে থাকা বোঝ
ভালোবাসার নামে তুমি সব কিছু হরন বোঝ
সব বোঝ বন্ধু তুমি, মানুষ বোঝ না !

প্রেম দাও, কথার পিঠে কথা দাও
অতীত বল, কষ্ট বল
সুখের নামে স্বপ্ন বল,
স্বপ্ন দেখার মানুষরে স্বস্থি দাওনা !

জীবন চালায় ভয়ের সাথে
অন্ধকারে পথ হাতড়ায়ে
সন্তানের ভবিষ্যতেও আঁধার দেখে
বুক ফুলিয়ে কাউকে কিছু বলতে পারেনা !

এ কেমন রঙ্গ বন্ধু বুঝিয়ে বলো না
স্বপ্ন নিয়ে বাঁচতে গেলে
স্বপ্ন দেখার মানুষকে কেন
বাঁচতে দাও না !

আকুল সুরে অনেক বলেছি বুঝতে চাইলে না
ক্ষমতা বোঝ পাওয়ার বোঝ
সংবিধানের দোহাই দিয়ে বারবার রাজা হতে
স্বপ্ন দেখাও
সংবিধানের প্রভুরে তুমি সম্মান দিলে না !

দুঃখ নিয়ে ঘুমাতে যায় তিমির রাতে
শান্তির বানী শুনতে চায় সাজ প্রভাতে
বাজ পাখির ডাক শুনে, দুরন্ত শকুন দেখে
শান্তির পায়রাগুলো ঘুমিয়েই থাকে বঁধুবেশে মখমলে
জলফোয়ারায় আগুন জ্বলে শান্তি দেখে না !

বন্ধু, অন্ধভেবে জনগণকে রঙ্গ দিও না
জয়ের নেশার পাওয়ার খেলা বন্ধ করো না
কথা দিচ্ছি তোমার সুখের ভাগ নিবো না
তবুও তুমি রাজ্য জয়ের রক্তের খেলা
বন্ধ করো না !

সব শেষে করজোরে আওয়াজ দিয়ে যাই
তুমি আমার বন্ধু থেকো যেমন চাও তেমন করে
ক্ষমতায় আসন গেড়ো দুঃখ আমার নাই !
এই পাওয়া সব পাওয়া নয়, বন্ধু বলে যাই
সব কিছুর শেষ আছে, ইতিহাসে লিখা আছে
মানুষের ওপর কষ্ট দিয়ে, রক্ষা কারো নাই !

দিন যতই পার করিবে জনগণ ঘুরে দাঁড়াবে
নরম সুর গরম হয়ে প্রতিবাদের সমস্বরে
একদিন ঠিক শুনাবে, সেইদিন খুব দূরে নয়
বন্ধু ! তোমার স্বপ্নের ভাগ; আমরাও একটু চাই !