নাগরিক পথের নিয়ন আলোয়
একা দাঁড়িয়ে থাকা
কৃষ্ণচূড়া বৃক্ষটির সাথে
ফিরতি পথে
প্রতিদিনই ভাবি কুশল বিনিময় করার কথা
ভাবি জিজ্ঞেস করবো
কেমন থাকে সে
এই আদিম সাজে শীতের রাতে
কথা হয় না,
পথে যেতে দূর থেকে দেখি
তার অনাবৃত দেহে খেলা করে
দুষ্টু চাঁদের আলো,
কম যায় না নিওন বাতিও,
বৃক্ষের অনুভুতি বোঝার চেষ্টা করি
অবশেষে একদিন তাকে জিজ্ঞেস করি
সে কেমন আছে
কৃষ্ণচূড়া বৃক্ষ জানায়, সে ভালো আছে
সর্পিল জীবন নিয়ে যেহেতু জন্মায়নি
সুতরাং সে বৃক্ষ হয়েই বাচে
চাদ আর নিওনের প্রেমে মাখামাখি
সমভ্রমহীনাকে একা রেখে আমি ফিরে আসি
বৃক্ষের মত আমিও লিখি
আমার যাপিত জীবনের এপিটাফ
প্রেমময় আকাশের তলে
আমিও ভালোবাসি
ভালোবেসে ভালো আছি।