আমি নিঃসঙ্গ হাটছি এ শহরের পথে পথে ।
হরপ্পা,কর্নসুবর্ণ, পাটালীপুত্রের
গাঢ় অবগুন্ঠিত ধূসর কাল হতে
আমি একা ।
আশ্চর্য বৃষ্টির ধোঁয়ায় ,কাঁঠালের সুবর্ণ ছায়ায়
নিশব্দ মরা জোছনায়
খুঁজে পাওয়ার যায় নি প্রণয়ীর মতো হৃদয় ।
কংকালের ধূসরতায় পৃথিবীর নীল জুড়ে
নিঃসঙ্গ একা একা হাটছিলাম রাস্তায় রাস্তায় ।
অষ্টাদর্শীর স্তনের নিটোল সুষমা,
ভরা শষ্যক্ষেত, অফুরন্ত পিপাসা,
কামুক ব্যথা ভরা বুক,
দহন পড়ীন দংশন আত্মার আবিষ্টবলি
অব্যাহতি নেই, আমৃত্যু হাটছি ।
ডোভার প্রনালী থেকে মালাস্কা
অজন্তার রূঢ় ধূসরতা ছেড়ে সমরকন্দের পথে
অকৃত্রিম প্রতিমার কাছে হৃদয় সমর্পিত ছিল ।
তবুও ঘুমের মতো মৃত্যুর বিহ্বল ছায়া দুচোখে।
কখনও ব্যথা মুছে না পৃথিবীতে ।