মানুষের জীবন যাত্রার সাথে সাথে সাহিত্যও আধুনিক হয়েছে নানা মাত্রায়। কবিতাও এর বাইরে নয়। কিন্তু আজ আধুনিকতার নামে এমন সব বস্তাপঁচা কিছু কবিতা দেখি, যা দেখলে শংকিত হতে হয়! যেখানে কোনো ভাব নেই, আবেগ নেই, সুন্দর মিষ্টি শব্দ নেই- যেনো কাঠখোট্টা সবকিছু! কাজী নজরুলও তো কবিতা লিখেছেন। বিদ্রোহের সব কালজয়ী কবিতা! কি কঠিন কঠিন সব বাক্য, শব্দ! অথচ কত সুমিষ্ট সেই ভাষাগুলো! কত প্রাণবন্ত! আজ আধুনিক কবিতার নামে যখন "প্রবন্ধ" দেখি তখন ভাবি কবিতার অলিক/কপালে কি এই ছিলো? কবিতাগুলো যেনো এই গ্রহের জন্য নয়, অন্য গ্রহের প্রাণীর জন্য! এই দুঃখবোধ আর কবিতার কপালের/ভবিতব্যের আশংকা থেকেই কবিতাটি লেখা।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১২ জুলাই ১৯৮৯
গল্প/কবিতা: ১৬টি

সমন্বিত স্কোর

৪.৩৭

বিচারক স্কোরঃ ২.৪৫ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৯২ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - অলিক (অক্টোবর ২০১৮)

এখানে একটা কবিতা ছিলো
অলিক

সংখ্যা

মোট ভোট ১৬ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.৩৭

সুমন আফ্রী

comment ১০  favorite ০  import_contacts ১৪৩
এখানে একটা কবিতা ছিলো
লাল রংয়ের কবিতা
সবুজ আর আকাশী রংয়ের কবিতা।

সাদা পায়রার মতো কবিতা ছিলো একটা।
বকুলের গন্ধ ভরা
শিশির ভেজা শিউলির মতো
তরুনীর খলখল হাঁসির মতো কবিতা।

এই কবিতায় দোয়েলের শীষ ছিলো
কালো কোকিলের মিষ্টি গীত ছিলো
ছিলো আকাশ ভরা তারাদের আলো
ইট-পাথরের গুমোট জীবনে মায়ার হাসি কারো...

অতঃপর চোখ মেলে দেখি একদিন
সেই কবিতাখানি আমার, নেই
আগের মতো নেই।
শুকিয়ে হয়েছে মলিন, ধূলি ধূসরিত...
এই কবিতায় মিষ্টি গন্ধ নেই
আবেগ নেই দোয়েল-কোকিলের
প্রাণ খোলা হাসি নেই কারো
অট্টালিকায় চাঁপা পড়া আকাশের মতো
চাঁপা পড়েছে আমার কবিতাটা
পারফিউমের গন্ধে
যান্ত্রিক হাসিতে
আবেগহীন দূর্বোধ্য সব কাঠকয়লার পাহাড়ে...

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement