অচেনা ভুখন্ড, শীতের কথা আনাচে কানাচে
প্রিয় বিছানায় ঝেঁপে আসে শৈশবের ভাষা
গাছ আর রোদ্দুরে এখনো পৌষ ভিজে বাঁচে
বুকের মাঝে তুমিও জানো কুয়াশা, কুয়াশা।

জানলাতে তাই দু’চোখ পেতেছি
রোদ্দুর আসার আগেই আদুরে আলাপে
শীতের বুনোটে সেই সব পোষাকী নাম
“খোকা, ওরে বল্টু, ওরে সোনা” যাসনে পালিয়ে।

আমিও দুষ্টু খুব, স্মৃতির পাতায় দেই ডুব
কথা খুঁজে পায়, পিওনের নাম লাল পলাশ
চিঠিতে চেনা স্বাদ, আমি নামাই মনগড়া রাত
আঁকাবুকি খাতায়, ছোট ডিঙ্গিতেই বালকের আবাস।

কখনো মেঘলা দিনের কথা, বন্যা ডাকে আয়
উদাসমানব, আমিও খেলি নরম কাঁদা গায়
সেই অনুবাদে হেঁটে ফেরা স্কুল, কখনো সাঁতার
বাবা বকতো, দরজা এঁটে ছিলো মায়ের বিচার।

তখন বারান্দায় ঘুমাতো আদুরে চাঁদ
কখনো জানলায় রোদ ছিলো দূর প্রতিবেশী
সমুদ্র স্বভাবী আমিও প্রতিদিন ডাকনামে বাড়ি
শৈশব, প্রিয় শৈশব- থাকতে আরেকটু বেশী!