বৃষ্টিকে ছুঁয়ে দেখতে হলে যেমন বৃষ্টির কাছে হাত বাড়াতে হয় তেমনি মিলন প্রিয়াসী প্রিয় দুটি মন(বর বধূ) একে অপরকে কাছে পাবার যে আকুতি, নিজেদের মিলনের একই গ্রন্থিতে, একই সুতোয় বাঁধতে যে ব্যাকুলতা,যে অস্থিরতা কাজ করে তাই তুলে ধরার চেষ্টা করেছি।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২ জানুয়ারী ১৯৮৩
গল্প/কবিতা: ৩০টি

সমন্বিত স্কোর

৪.২৭

বিচারক স্কোরঃ ১.৮৭ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ২.৪ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - মিলন (আগস্ট ২০১৯)

ছুঁয়ে দেখা বৃষ্টির মতো
মিলন

সংখ্যা

মোট ভোট ১২ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.২৭

মাইনুল ইসলাম আলিফ

comment ৯  favorite ১  import_contacts ১৬৭
অসংজ্ঞায়িত কিছু সুখের কাছে সুখ খুঁজে
তোমাকে চাই একান্তে, চোখ বুজে রোজ।
চৈত্রের শেষ দুপুরে খরতার প্রকোপ ঝেড়ে,
ঢল নামা চিঠির খামে
ছুঁয়ে দেখি তোমাকে বৃষ্টি ফোঁটায়।
দিন গুনি অংকের মলাটে,
থাকি প্রতীক্ষায়, সময়ের ডানায়।
কবে আসবে সেই তিথি?
কবে ফুরোবে সেই অপেক্ষার প্রহর?
যার প্রতীক্ষায় স্বপ্নের ফেরিওয়ালা সেজে
নিজেকে স্বপ্নে মাখা, আমি এক স্বপ্নবাজ।
স্বপ্ন দেখি, স্বপ্ন দেখাই
মোমের সুতোয় জ্বালি বাসরের রোশনাই।
ফুলের কাটায় অপেক্ষার ছটা,
পাপড়িতে আঁকা মধুচন্দ্রিমা।
আলাপে আলাপন, আহ্লাদে আটখানা
কথা গুলো সব রেখেছি মনের ব্যাংকে জমা।
প্রতীক্ষায় বাড়ে সময়ের সমীক্ষা ।
তবু মিলনের তিথিতে বাহুডোরে চাই তোমাকে,
ছুঁয়ে দেখা বৃষ্টির মতো।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement