হিমসুখ কুয়াশার চাদর জড়িয়ে একটি শীতের প্রভাত
আধহাতি আইলের উপর উদোম পায়ে শিশিরের চুম্বন
ডানে দূরত্ব জুড়ে সবুজ পত্রকোলে কচি ধানের শীষ
বামে সদ্য ফোটা সর্ষে পরশে উচ্ছল হলুদ বাতাস ...

যান্ত্রিকতার পুঁজিবাদ ও গণতন্ত্র খুব কাছে এসে পড়ছে,
কুয়াশা পালালেই আগ্রাসী শহরের হাঙর মুখ দৃশ্যমান হবে,
আবাসন নামের বানিজ্য রসাতলে হাঙরের পেটে যাবে
ঐ সুউচ্চ তাল গাছটাও, তারপর একসময় পুরো বিল।

তার আগেই বাংলা গায়ের সোঁদা গন্ধে নির্দোষ মাতাল
হয়ে উঠব বলে একটা প্রভাত চেয়ে নিয়েছি স্রষ্টার কাছে ,
সূর্যটা স্বাক্ষী হলেই হারিয়ে যাব কালের দূরন্ত ধ্বংসে ...

তারপর আমার সবুজ শ্যামল কান্তি সংকাশ গ্রাম বাংলা
তুমি লুকিয়ে থেকে আমার কল্পলোকের স্বর্গ নির্জনতায়...
হয়তো এই প্রভাতের শেষ স্মৃতি নিয়েই বাঁচতে হবে ,
তোমরা তো মরে যাচ্ছ পুঁজিবাদের হাঙর মুখের গ্রাসে।