অন্নদাতা ভাগ্যদাতা স্বর্গে পড়ে আছেন বুঝি!
সব রেখেছেন কব্জা করে- তেল ময়দা চালের পূঁজি।

ইচ্ছেমত সরবরাহ, ইচ্ছেমত আটকে রাখা,
পেট ভরে না, মন ভরে না ভুবনটাকে করলে ফাকা।

কত কোটি চায় যে তাদের, পেট ভরাতে লাগবে কত!
কত হলে ক্ষান্ত দেবে? আমরা না হয় দেব তত।

ধর্না দিয়ে কাজ হয়না, স্বর্গে থাকেন স্বর্গরাজা
দেখে বুঝি খুব মজা তার- আমরা কেমন পাচ্ছি সাজা।

তারা ভাবে- স্বর্গে অমর, তাই লুটে খায় অভাগাদের,
কী হবে আর অন্নে-ধনে ভাগ্যে মরণ আছে যাদের?

একটু পিছে তাকিয়ে দেখুক, ইতিহাসের পর্দা তুলে
মহামহা ক্ষমতাধর অহংকারে ছিল ভুলে-

ক্ষমতা আর ধনের মোহে জগতটাকে ভুলল তারা,
তাদের হিসাব রাখল ঠিকই নিয়তি- তার নিজের ধারা।

বিশ্ব ছিল তাদের মুঠোয়, ধনের পাহাড় তাদের হাতে,
কিন্তু তাদের মরণ ছিল অভিশাপের কশাঘাতে।

তাদের কাজে লাগেনি সেই ক্ষমতা আর ধনের বোঝা,
তলিয়ে গেছে তারা নিজে অভিশাপ আর ঘৃণায় সোজা।

ঘৃণার সাথে স্মরণ করে তাদের কথা জগতবাসী,
ঘৃণ্য দলে য়ুক্ত হওয়ার হয়তো এরাও অভিলাষী।