আমি অভিশপ্ত সিসিফাস

দিগন্ত সংখ্যা

ক্যায়স
  • ১৪
  • 0
এক ছায়াপথ বিস্তৃত নক্ষত্র বাগান ছিল এই হৃদয় প্রাচীরে। রূপকথার সোনালি
প্রজাপতিগুলো ডানামেলে উড়ে বেড়াত সেই নক্ষত্র মেলায়, গাইত সান্ধ্য প্রেমসংগীত।

বড্ড ইচ্ছে ছিল বিস্তৃত নীল সীমানা ছুঁয়ে বাঁধবো ছোট্ট এক চিলেকোঠা
অবাধ্য দিনের ফিনিক হারানো সব উত্তাপ নিভে গেলে,
পৌরাণিক কোন ফিনিক্স হয়ে ভেসে যাব কসমিক শূন্যতায়।

অমর্ত্য কুয়াশার গা ছুঁয়ে নেমে আসা মেনকা- দিয়েছিলো শূন্যতার প্রতিশ্রুতি!
কথা রাখেনি সে! ছিড়ে ফেলেছিল হৃদয়ের গহীনে লুকিয়ে রাখা রুপালী খামের রৌদ্রচিঠিটা,
উড়ে গিয়ে রক্তিম জলের গভীরে আরো গভীরে ঢুকে পড়ে ছেড়া খামের সেই চার বর্ণ।

মহাকাশ পথ পাড়ি দিয়ে আমার গাড় অন্ধকার বেয়ে নেমে আসে মরফিয়াসের মিষ্টি ঘ্রান,
এদিকে নিয়ত মনের ডানা গ্রাস করে চলেছে ইনসমনিয়ার অতল প্রহরীরা।

আমার উদ্ভ্রান্ত শহরের পাতালপুরী আজ তীব্র এসিড বৃষ্টিতে ভিজে অসাড়
পাঁজরে নিথর পড়ে থাকে কিছু কংক্রিটের ব্লক আর পাথরেরা।
মিছিমিছি তবুও পাবার আশায় ভেজা শ্যাওলার পাথরে হড়কে পুরানো সেই রক্তক্ষরণ।

সুরালয় ঠিকানায় ওড়াবো ভেবে স্বপ্নসুতোর দূরত্ব মেপে কিনেছিলাম সাদা একটা ঘুড়ি।
হয়নি! পাথরের ঘুম ভাঙ্গিয়েছি, অভিশাপে-
লাল রক্তের ছোপ লেগে ঘুড়িটা আজ খোলস বন্দি শামুকে।
এখন নক্ষত্রের করুণ সেরেনেডে আকাশ ছুঁয়ে বর্ষা নামলে, সারারাত ডুবি সবুজ মখমলের চাদরে।
বৃষ্টির জল অবশেষে সমুদ্রে গিয়ে পরে- তার স্বাদ নোনা কেন সেই খবর কেউ রাখেনা।

আর আমি নিয়ত বুদ্ধির গোড়ায় ধোঁয়া দেই
অভিকর্ষটানে তোমার কক্ষপথে- দিগন্ত জুড়ে,
সময়ের কাস্তেতে কাটি শুন্যতার ফসল আর বুনে চলি আশার বীজ।
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
ruma hamid আমি মন্তব্য দেবার পরেই ভোট দিয়ে থাকি কিন্তু আগের সংখ্যায় তা করতে যেয়ে দেখি ভোটিং বন্ধ ছিল । এবারও বন্ধ । শুভেচ্ছা জানবেন ।
ক্যায়স দুঃখিত ব্যস্ততার মাঝে সময় করে উত্তর দিতে পারিনি। বাই ডিফোলট ভোটিং বন্ধ ছিল আপু। তবে আপনাদের চমৎকার মন্তব্য কিন্তু কম পাওয়া নয়। ভালো থাকবেন সবসময়।
মুন্না বড়ুয়া ভাল লিখেছেন। শুভেচ্ছা রইল।
ক্যায়স দুঃখিত ব্যস্ততার মাঝে সময় করে উত্তর দিতে পারিনি। সুন্দর মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া।
নাজমুছ - ছায়াদাত ( সবুজ ) কবি ভাই আপনি সব সময় যে অসাধারণ ও ব্যতিক্রমী লেখা আমাদের উপহার দেন তা সবাই জানে , এটিও তার বিপরীত কিছু নয় । বেশ ভাল লেখা । শুভেচ্ছা সব সময় ।
ক্যায়স দুঃখিত ব্যস্ততার মাঝে সময় করে উত্তর দিতে পারিনি। সুন্দর মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া।
সালমা সিদ্দিকা কবিতা বুঝি কম, কিন্তু অদ্ভুত ব্যাপার হচ্ছে তোমার এই কবিতায় কি একটা আবেগ আছে, খুব ভালো লাগলো, কেমন একটা বিষন্নতা আছে . ভোটিং বন্ধ কেন বুঝলাম না. একজন কমেন্ট করেছেন যে তিনি ভোট করেছেন. বোঝাই যাচ্ছে কপি পেস্ট করে দিয়েছেন .এক কমেন্ট হয়ত সবাইকেই দেন, গল্প কবিতা না পরেই . এমন মন্তব্য কাম্য না.
ক্যায়স আপু আপনি এত ব্যস্ততার মাঝে সময় করে আমার কবিতাটি পড়েছিলেন এটাই আমার অনেক বড় পাওয়া। তবে আমি সময় করে উত্তর দিতে পারিনি বলে দুঃখিত। আমি নিজেও কবিতা খুব ভালো একটা বুঝিনা এবং বুঝতেও চাইনা, কারন একজন কবির একটি মন্তব্য পড়েছিলাম, যারা কবিতা বুঝতে চেষ্টা করে কবিতা তাদের জন্য নয়, কবিতা হল অনুভব করার বিষয়। এইযে আপনি বিষন্নতা অনুভব করেছেন এটাই মুল জিনিস। তাই এখন থেকে দয়া করে আমি বুঝিনা বা পারিনা এই শব্দগুলি আর না বললে খুশি হব। আপনার লেখার মান সম্পর্কে আমার ধারনা আছে, ভালো থাকবেন সবসময়।
সেলিনা ইসলাম চমৎকার সব উপমায় সজ্জিত অসম্ভব সুন্দর একটা কবিতা...! এতো আবেগ আর ভালোবাসায়ও জংধরাটা নির্মুল করার ক্ষমতা নেই,কেবলই স্বপ্ন বুনে আশায় দিন গুনে যাওয়া ছাড়া ...! মন ঘিরে আছে কি নির্মম সময়ের আস্তরণ...! কেউ কেউ ভোট দিয়েছে কমেন্টে লিখেছে কিন্তু আমি দিতে পারলাম না,দেখি ভোটিং বন্ধ...! কবিতার মূল্যায়ন না করতে পারার ব্যর্থতা নিয়েই অনেক অনেক শুভকামনা রইল।
ক্যায়স প্রতিযোগিতার এই যুগে টিকে থাকার কোন স্ট্র্যাটেজি হবে হয়ত, বাই ডিফোলট ভোটিং বন্ধ আছে। আপনার সৎ এবং এত চমৎকার মন্তব্যও কিন্তু কিছু কম পাওয়া নয় আপু। ভালো থাকবেন সর্বদা।
দীপঙ্কর বেরা লেখাটি বেশ সুন্দর । ভোট দিলাম । আর আপনার মত ও ভোটে আমরাও বাংলা ভাষাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি । ভাল থাকবেন ।
ক্যায়স সময় করে অবশ্যই পড়ে দেখব। ভালো থাকবেন।
রবিউল ই রুবেন অনেক ভালো। শুভকামনা রইল। আমার পাতায় আমন্ত্রণ রইল।
ক্যায়স সুন্দর মন্তব্যের জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাই । ভালো থাকবেন।
প্রিন্স ঠাকুর সুন্দর কবিতা। ভাল লাগল। শুভকামনা নিরন্তর। আমার কবিতাটি (দিগন্তের মাঝে বিন্দু) পড়ার আমন্ত্রন রইল।
ক্যায়স সুন্দর মন্তব্যের জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাই । ভালো থাকবেন।
গোবিন্দ বীন আমার উদ্ভ্রান্ত শহরের পাতালপুরী আজ তীব্র এসিড বৃষ্টিতে ভিজে অসাড় পাঁজরে নিথর পড়ে থাকে কিছু কংক্রিটের ব্লক আর পাথরেরা। মিছিমিছি তবুও পাবার আশায় ভেজা শ্যাওলার পাথরে হড়কে পুরানো সেই রক্তক্ষরণ।ভাল লাগল,পাতায় আমন্ত্রন রইল।
ক্যায়স সুন্দর মন্তব্যের জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাই । ভালো থাকবেন।
মোহাম্মদ সানাউল্লাহ্ কবিরা যে আশাবাদী হয় সে কথাটিই আপনি সুন্দর করে কাব্য রসে ফুটিয়ে তুলেছেন । খুব ভাল লাগল ।
ক্যায়স সুন্দর মন্তব্যের জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ ভাই । ভালো থাকবেন।

২০ জুন - ২০১১ গল্প/কবিতা: ১ টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের আংশিক অথবা কোন সম্পাদনা ছাড়াই প্রকাশিত এবং গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী থাকবে না। লেখকই সব দায়ভার বহন করতে বাধ্য থাকবে।

প্রতি মাসেই পুরস্কার

বিচারক ও পাঠকদের ভোটে সেরা ৩টি গল্প ও ৩টি কবিতা পুরস্কার পাবে।

লেখা প্রতিযোগিতায় আপনিও লিখুন

  • প্রথম পুরস্কার ১৫০০ টাকার প্রাইজ বন্ড এবং সনদপত্র।
  • ্বিতীয় পুরস্কার ১০০০ টাকার প্রাইজ বন্ড এবং সনদপত্র।
  • তৃতীয় পুরস্কার সনদপত্র।

বিজ্ঞপ্তি

“অক্টোবর ২০২১” সংখ্যার জন্য গল্প/কবিতা প্রদানের সময় শেষ। আপনাদের পাঠানো গল্প/কবিতা গুলো রিভিউ হচ্ছে। ১ অক্টোবর, ২০২১ থেকে গল্প/কবিতা গুলো ভোটের জন্য উন্মুক্ত করা হবে এবং আগামি সংখ্যার বিষয় জানিয়ে দেয়া হবে।

প্রতিযোগিতার নিয়মাবলী