এ কেমন দেশ প্রেম

গর্ব সংখ্যা

মোহাম্মদ আকতার উজ জামান (মুন্না)
  • ৩৬
  • 0
  • ৩৭
ঢাকা, মতিঝিল,
অফিস আওয়ার শেষ, তাই রাস্তাঘাটে প্রচুর জ্যাম। প্রাইভেট কারের সারি। তারমধ্যে অনেক দামী ক্যাডিলাক গাড়িটা সবারই চোখে পড়বে। গাড়িটাতে বান্ধবী নিয়ে বসে রয়েছে রাহাত। এটা তার কয় নাম্বার বান্ধবী তার নিজেরও মনে নেই।

মা-বাবা সড়ক দুঘর্টনায় মারা যাওয়ায় শিল্পপতি পিতার অঢেল সম্পত্তির মালিক এখন রাহাত।কলেজ পড়ার সময় মা-বাবার বর্তমানেই সে বখে গিয়েছিল। এখন একটা নামকরা প্রাইভেট ইউনিভার্সিটিতে বিবিএ করছে সে। যদিও ভার্সিটিতে ক্লাস করার চেয়ে আড্ডা আর নতুন নতুন বান্ধবী জোগাড় করাই তার মনোযোগ বেশি।

লাইট ক্লাবে বসে কথা বলছে রাহাত তারই মত বখে যাওয়া এক বন্ধু শিপন এর সাথে, বিষয় দেশ। কথায় কথায় রাহাত বলল, “এইটা একটা দেশ নাকি,”
“কেন কি হল?”
“আরে, এইখানে না আছে ভাল একটা ডিসকো, না আছে ভাল একটা বার, গাড়ি নিয়ে ডেটিং এ যাও, জ্যামের কারনেই সময় শেষ, আর ভাল্লাগেনা,”।
“তা ঠিক বলেছিস, কি করবি এখন,” শিপন জিজ্ঞেস করল তাকে।
“আর এখানকার মেয়েগুলোও যেমন, সম্পর্ক হলেই বিয়ের জন্য চাপাচাপি করে। মানুষ গুলোতো আরও আদিম, আরও বলে কিনা আমরা বখে যাওয়া, হুহ,” তার কথায় বোঝা গেল সে দেশকে যেমন ঘৃণা করে তেমনি দেশের মানুষকেও।
“আছিস কেন এদেশে?”
“দূর না, ডিভির জন্য আবেদন করেছি, পেলেই চলে যাব, তুই কি করবি,”।
“তোর তো বাবা-মা নাই, স্বাধীনভাবে সিদ্ধান্ত নিতে পারিস, আমার বাবা-মা তো আমাকে কোথাও যেতে দিবেনা। এই পচা,জঘন্য দেশেই থাকতে হবে”। এমনভাবে মুখ বাকাল সে বাংলাদেশ যেন পচা নর্দমা আর সে ভুল করে পা দিয়ে ফেলেছে।

রাহাত ভাবেনি ওর অবস্থা কখনো এমন হবে, আজ প্রায় দুই বছর হল ডিভি জিতে আমেরিকা এসেছে।



(এটা আমার ১ম গল্প, যদিও শেষ করতে পারি নি। দয়া করে, আমার ভুল গুলি ধরিয়ে দিলে আমি খুশি হব।ধন্যবাদ)
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
ফাতেমা প্রমি স্টার্টিং ভালই। শেষটা সম্পূর্ণ করলেই হত। দেশপ্রেম বিষয়ক মেসেজ দেয়ার চেষ্টা ছিল, বেশ ভালো ব্যাপার।। সামনে আরও লেখা দেখতে চাই,অনেক অনেক শুভকামনা...।
পন্ডিত মাহী রাহাতের কি অবস্থা হলো তা কিন্তু বলোনি ভায়া, সেটা বললেও কিছুটা সম্পূর্ন হতো...
মোহাম্মদ আকতার উজ জামান (মুন্না) ভাই গল্প লিখব না আর। এটা আমার ধারা সম্ভব না।:(
খোরশেদুল আলম প্রথম এবং নতুন হিসাবে সুন্দর ভাবে শুরু হয়েছে আশা করি ২য় গল্পটি ভালো ভাবেই শেষ হবে। শুভ কামনা রইল।
আনিসুর রহমান মানিক ভালই লিখেছ লিখতে থাকো /
sakil মাথা আছে লেজ নাই গোছের . আশা করি আগামীতে সম্পূর্ণ গল্প পাব. অনেক শুভকামনা রইলো .
আশা লেখা শুরু করেছেন- ভালো কথা। শেষ তো আপনাকেই করতে হবে। কিন্তু কেন করেনি ? আপনিতো জানেন- প্রবাদ আছে শেষ ভালো যার সব ভালো তার। আপনার এখানে শেষ নেই দেখে প্রবাদটি জুড়ে দিলাম। ভবিষ্যতে শুরু করার আগে শেষ করার কথা অবশ্যই মাথায় রাখবেন। তো যা-ই হোক, ছোট্ট করে শুভকামনা করে গেলা। কিছু একটাতো লিখেছেন।
সূর্য মুন্না, গল্পে দৃশ্যপট বা সময়ের পরিবর্তনে "এক" "দুই"...... এভাবে বিন্যস্ত করলে পড়তে বিষম খেতে হয় না। তবে যদি ধারাবাহিকতা থাকে তখন আর নাম্বরিং করার দরকার হয় না। আর গল্পটা শেষ দিকে মনে হয়েছে আলোর গতিকেও হার মানিয়েছে। একটু সময় নিলে পরিপূর্ণ সুন্দর একটা গল্প হয়ে উঠতো। আগামীতে যেন এই অভিযোগ করার সুযোগ না পাই। ওকে!!
আহমেদ সাবের রনীল 'এর সাথে একমত - "খন বুঝতেই পেরেছেন যে গল্পটা অসম্পূর্ণ থেকে গেছে- তখন এটা সম্পূর্ণ করে জমা দেওয়াটাই কি শ্রেয় ছিলনা"! যতটুকু লিখেছেন, ভালই লাগলো। লেখায় সাবলীলতা আছে।
নিরব নিশাচর ............................... তুমিতো আড্ডা মারতে বেশ গুছিয়ে আড্ডা মারো কিন্তু নিজের গল্পখানা একটু এলোমেলো করে ফেলেছ দেখছি... যাই হোক, ভবিষ্যতে আরো মনোযোগী হবে আশা রাখছি...

০৪ জুন - ২০১১ গল্প/কবিতা: ২ টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের আংশিক অথবা কোন সম্পাদনা ছাড়াই প্রকাশিত এবং গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী থাকবে না। লেখকই সব দায়ভার বহন করতে বাধ্য থাকবে।

প্রতি মাসেই পুরস্কার

বিচারক ও পাঠকদের ভোটে সেরা ৩টি গল্প ও ৩টি কবিতা পুরস্কার পাবে।

লেখা প্রতিযোগিতায় আপনিও লিখুন

  • প্রথম পুরস্কার ১৫০০ টাকার প্রাইজ বন্ড এবং সনদপত্র।
  • ্বিতীয় পুরস্কার ১০০০ টাকার প্রাইজ বন্ড এবং সনদপত্র।
  • তৃতীয় পুরস্কার সনদপত্র।

আগামী সংখ্যার বিষয়

গল্পের বিষয় "ভয়”
কবিতার বিষয় "আঁধার”
লেখা জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৫ আগষ্ট,২০২১