লেখকের তথ্য

Photo
গল্প/কবিতা: ১১৩টি

সমন্বিত স্কোর

৩.৩৩

বিচারক স্কোরঃ ১.৭৩ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৬ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftভৌতিক (নভেম্বর ২০১৪)

মায়াজাল
ভৌতিক

সংখ্যা

মোট ভোট ২৪ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৩.৩৩

সেলিনা ইসলাম

comment ১৩  favorite ০  import_contacts ১,১৬৩
শীতের কুয়াশা ঢাকা গভীর রাতের বুকে
এক গুচ্ছ ফুল হাতে দাঁড়িয়ে আছি-
নির্দিষ্ট সিঁড়ীর ধাপে। এমন সময় হঠাৎ...!
মিনারের ওপাশ থেকে ধোঁয়ার বেষ্টনী পেরিয়ে
ঘৃণাভরা গর্জিত চোখ কপালের মাঝে
জ্বলন্ত আগুনের শিখা চর্কি কাটে উপর দিকে
ধীরে ধীরে দল বেঁধে 'ওঁরা' এগিয়ে আসে,
এগিয়ে আসে চারিদিক থেকে!
রক্ত ভেজা শরীরে ঘাসের চাদর জড়িয়ে মাটি
ছায়ামুর্তি হয়ে ধেয়ে আসে ঝড় বেগে!
শূন্যে ভাসা সজারুর কাঁটা টাটকা রক্তে লেখে-
"অকৃতজ্ঞ তোরা,বিবেকহীন,স্বার্থপর,
মুখোশধারী,মা মারণ উচ্চাটন!"
শ্বাসরুদ্ধ,পোড়া মাংসের ঝলসানো পরিবেশে
উপহাস করে ধোঁয়াটে মেঘের অমানবিক আচরণ!

পরক্ষণেই আকাশ ছুঁয়ে লৌহ মানব
কুচকাওয়াজে সঞ্চরিত হয় বাতাসে !
আঁধার পাপড়ি শুঁকে সময়ের গন্ধটুকুও পাইনা
উপপাদ্যের ভুলগুলো টগবগ করে ফিরিঙ্গি মস্তিস্কে,
মেঘ ভেসে যায় ঝাপসা হতে থাকে সবকিছুই
হাতড়ে ফিরি নগ্ন বরফ মোড়ানো সহজাত জ্ঞান।
শীতল অনুভূতি খামচে ধরেছে হৃদপিণ্ড
সাপের মত কিলবিল করে হাতের ফুলগুলো
কাঁটা ফুটিয়ে দেয় প্রতিটি লোমহর্ষণ!
ঘর্মাক্ত আমি দেখি প্রতিদিনের ক্লান্ত ভোর।
নেশাতুর ভয়ে ঠায় দাঁড়িয়ে স্মৃতিসৌধে
চারিদিকে চলে উল্লসিত প্রতিবিম্ব হারানো-
অদৃশ্য মায়াজালের আদর।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement