দিগন্তের বিস্তির্ণ বালুচরে
সাজানো স্বপ্ন বাসরের স্বাদ
আমার অন্তরাত্মার অপরিপূর্ণতায় মগ্ন।
নিমিষের ধুলিঝড়
ক্ষুদ্র বাসরের সঞ্জিবীত সুরা,
দেহের সীমারেখায় কেবলই আলোর ঝলকানি।
তীব্র গতি রৈখিকতার
মৌনতার মাঝে আত্ম বিসর্জন,
অতঃপর তোমার হাত ধরে উঠে আসি
সমস্ত পাপাচারের উর্দ্ধে।
মনের সাধনায় দেহের নির্লিপ্ততা
শুধু উষ্ণতার মাঝে যেটুকু পাওয়া।
তপ্ত নিঃশ্বাসের নিকটতম দুরত্বে
নীরব অবগাহনের স্বাদ।
আমার অপরিপূর্ণতার মৌন নিকুঞ্জের
পবিত্রতম পুষ্পবৃন্ত খানিতে
শোভিত হোক তোমার-ই দেবতার
দু’খানা চরণ।
অতঃপর অন্তরের সুন্দরতম ছিন্ন পদ্মপত্রে
রচিত হোক আমার-ই
স্বপ্ন বাসরের নির্মাল্য।