এক.
একদিন তবু ঠিক উঠে পড়ি- ফেরার টিকেট নেই জেনে
ভালবাসা, নীল খাম, বাতাসের সবুজাভ ট্রেনে
একদিন তবু ঠিক- মুগ্ধতর দৃষ্টির জলে ভিজে গিয়ে
পা রেখেছি চৌকাঠে, তীব্র কোন চোরা স্রোত নিয়েছে ভাসিয়ে

দুই.
ওভাবে তাকাও কেন?
দাবানলে পুড়ে যায় বৃষ্টি বন
চোখের সমুদ্র থেকে চুয়ে আসে নীল জল
ওভাবে তাকিওনা। ভয় হয়-
ভীষণ আনাড়ি, মেয়ে; সাঁতার জানি না

তিন.
রোজই কাগজ কলম নিয়ে বসি
অনেক কথা জড়িয়ে নীল খামে
চোখ থেকে চোখ গভীর বিনিময়ে
ভেজা স্মৃতির জানলা আটা ফাঁকি
রঙিন কাগজ ফাঁকাই পড়ে থাকে
মিলিয়ে যায় কথার নদী, ঢেউ
চোখ থেকে চোখ- ব্যাকুল তৃষ্ণারা
গুমরে কাঁদে মন কেমনের ঘোর

চার.
যতটা বৃষ্টি ঝরে আগুনে বুলায় মৃদু মমতার ছাট
আমি কি ভিজব, নাকি জুড়ে দেব জানালা কপাট?
আমি কি পোড়াবো বুক কিছুকাল, আরও কিছু দিন?
শূন্যতা ভরে চোখে- সেই চোখে, সেই প্রিয়হীন-
আকাশে ওড়াবো নীল, ঝড় দেবো শান্ত বাতাসে?
অবেলায় নীল খামে ফিরে এলে চেনা আকুলতা
লোনা জলে ধোব মুখ? নাকি কোন গভীর তিয়াসে-
গিটারে বোলাব হাত, আঙুলে ঝরাবো চুপকথা