এইসব জলঘোলা করা কাজল মেঘে একদিন বৃষ্টি নামবে
এই স্বর্ণকেশী মরা গাঙে একদিন জাগবে নতুন ঢেউ
যুবকের সবুজ হৃদপিণ্ড ফুঁরে সেদিন বেরিয়ে আসবে
একখণ্ড গোলাপি মুক্তো।
স্বর্গ থেকে আবার যেদিন মর্ত্যে নামবেন সুন্দরী রেমেদিওস;
মোহান্ধ মানুষকে শোনাবেন মোহমুক্তির গান।
তাঁর শরীর থেকে ভেসে আসা অপার্থিব গন্ধে,
একে একে সবকটি মানুষ জড়ো হবে
পৃথিবীর বুকে উদীয়মান শেষ পাহাড়টার চূড়ায়।
এইসব বক্ষভেদী দূরদৃষ্টির মেঘগুলো তখন বৃষ্টি নামাবে।
তাদের এক এক ফোঁটা জল ধুয়ে নিয়ে যাবে
ক্লেদাক্ত সভ্যতার বিকৃত ভাগাড়ে জমে থাকা সবটুকু পাপ।
অন্ধকারে জ্বলে ওঠা কালো চিতার চোখ নয়,
আলোর ভিতর জন্ম নেবে আলোর প্রজাপতি।

সেই সুদিনের অপেক্ষায়-
যেদিন পৃথিবীর সব মানুষের ঘুম ভাঙবে
নবজাতকের নিষ্পাপ মুখের গোলাপি আভায়
যেদিন বাইবেল, কুরআন আর গীতার ধ্বনি
একত্রিত হয়ে তৈরি করবে আশ্চর্য সিম্ফনি!
বহুবছরের ছায়ান্ধকারে বিলীন হয়ে যাওয়া রুপোলী দ্বীপ
জেগে উঠবে সমুদ্রের বক্ষ থেকে।
এইসব বুনো আদিম মেঘগুলো সেদিন বৃষ্টি ঝরাবে
হয়তো সেখানে থাকবনা তুমি কিংবা আমি,
আলোকের তীব্র স্ফুলিঙ্গের নিচে
মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে থাকবে আমাদের আগামী।