রাত্রি এখন কটা হবে হাতড়ে বেড়াই ঘড়িটা,
এমন সময় নড়ল উঠে দাদুর হাটার ছড়িটা।
আধো ঘুমে বুঝতে পারি ধীর পায়ে হাটছে কেউ;
আলতো করে আসছে কানে কুকুর ডাকা ঘেউ আর ঘেউ,
ঘামছি আমি কেন জানি গলা শুকিয়ে একদম কাঠ;
একটু পরে হঠাত দেখি ওমা একি নড়ছে খাট!
সাহস করে চোখ খুলতেই সামনে খোলা কাঠ দুয়ার,
অমাবস্যার রাত আজকে ঘুটঘুটে বেশ অন্ধকার।
তবু খানিক দেখতে পেলাম যাচ্ছে কেউ ঘরের বাহির ;
এলোমেলো চিন্তা অনেক মনের ভিতর করছে যে ভিড়,
এত রাতে বাইরে দাদু ভেবে পাইনা কূল কিনার;
টিনের চালে শব্দ হঠাত ঘুম ভেঙ্গে যায় তাই আমার।
শান্ত হয়ে বুঝতে পারি সবটাই ছিল স্বপ্ন দেখা,
বুকে ছিল গল্পের বই কাচাড়ি ঘরে আমি একা।