চাইনা আমি এমনতরো কল্পনার বিজ্ঞান

বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী সংখ্যা

এই মেঘ এই রোদ্দুর
  • ২৭
চাই না আমি এমনতরো কল্পগাঁথা বিজ্ঞান
যে বিজ্ঞানের কল্পকথা পড়লেই হতে হয় অজ্ঞান ।

মানুষের মস্তিষ্কের অনুভুতি গুলো
বিজ্ঞান করে দেয় এলোমেলো
ব্রেইনকে উন্নতি করতে
নিয়ে যায় সিলিকন ভ্যালিতে ।

বিজ্ঞান একাদেমীর পরিচালকের পুরাই মাথা নষ্ট
আবিষ্কারের নতুন মাত্রার যোগ দিতে দিনরাত করে কষ্ট ।

বিজ্ঞানীরা পাখির সাথে মিলিয়ে তৈরী করে মানুষের ছানা
অবাক কান্ড মানুষের হয় পাখির পাখনা, নাম হয় ইকারাসের ডানা ।

বাস্তব দুনিয়ারে বানিয়ে ফেলে ভার্চুয়াল
উলট পালট করে সুন্দর পৃথিবীর করে সব বানচাল ।

মানুষগুলো সব হয়ে যায় যন্ত্র মানব
মন হারিয়ে মানুষসব যেন হয় সব দানব ।

মরার আগে ঢুকিয়ে ক্যাপসুলে
ঠান্ডা ঘরে পাঠিয়ে চড়িয়ে দেয় যেন শুলে ।

অনন্ত শান্তির পৃথিবী করতে গিয়ে সন্ধান
মহাকাশযানে অনন্ত যাত্রার করে আয়োজন ।

পৃথিবীটারে করে জনমানবশূন্য
কল্পনার জগতে ঢুকে বিজ্ঞানীরা হয় ধন্য ।

পৃথিবীটা ভরে যায় হিংস্রতায়
মানুষগুলো মানুষকেই ধরে ধরে খায় ।

বাস্তব পৃথিবী পরিচালনায় নামে যে রোবট
কে মানুষ কে রোবট যায় না চেনা ঝটপট ।

হায় হায় চাই না আমি এমনতরো কল্পনার বিজ্ঞান
কল্পগাঁথা বিজ্ঞানের হিংস্রতায় আমি যে হারাই জ্ঞান ।

==========================================
এবারের বিষয় আসলেই অনেক কঠিন.......
===========================================
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
সুমন বিজ্ঞানীরা পাখির সাথে মিলিয়ে তৈরী করে মানুষের ছানা অবাক কান্ড মানুষের হয় পাখির পাখনা, নাম হয় ইকারাসের ডানা ।................বাহ্ দারুন লিখেছেনতো!
সূর্য হায়! হায়! বিজ্ঞানকে এত ভয়! হা হা হা। পরমানুর তেজস্ক্রিয়া চিকিৎসায়(কেমো, রেডিও একটিভ ঔষধ), বিদ্যুৎ উৎপাদনে প্রচুর ব্যবহার হচ্ছে। আবার হিরোশিমা, নাগাসাকি জ্বালিয়ে দেয়ার উদাহরণতো রয়েছেই। বিজ্ঞানের দোষ কই ? সবইতো করছে মানুষ। আমি বরং এই অসৎ (ধ্বংসাত্মক) মানুষগুলোকেই ভয় পাই। পজেটিভ কিছু পেলে বেশি ভাল লাগতো।
এই মেঘ এই রোদ্দুর আসলে কল্পনা করার মত সময়ই পাইনি । ধন্যবাদ
শাহ আকরাম রিয়াদ আগে আমি সাইফাই পড়ে মাথায় আউলা ঝাউলা লাগিয়ে ফেলতাম, ভাবতাম কি সব আজাইর‍া সাইফাই। কিন্তু এই সংখ্যায় পান্না ভাইয়ের গল্প বিভাগের ''লেখাটা পড়ে সেই ধারণা পালটে গেলো । আশাকরি লেখাটি পড়বেন। আপনার কবিতা ভাল লাগল। শুভকামনা রইল।
খন্দকার নাহিদ হোসেন বেশ। তবে প্রত্যাশা কিন্তু বেশি।
আহমেদ সাবের ছন্দে ছন্দে বিজ্ঞানের বারোটা বাজানো হলো। মন্দ না। তবে, একটু কল্পনার মশলা মিশিয়ে একটা কাহিনী দাঁড় করিয়ে দিতে পারতেন। তবু, কবিতা হিসেবে ভালই লেগেছে।
জিয়াউল হক সুন্দর । ছন্দ নির্ভর আর সহজবোধ্য ।ভাল লেগেছে ।
মোঃ সাইফুল্লাহ মরার আগে ঢুকিয়ে ক্যাপসুলে ঠান্ডা ঘরে পাঠিয়ে চড়িয়ে দেয় যেন শুলে ---------------------- বেশ সুন্দর কবিতা//

০১ মার্চ - ২০১১ গল্প/কবিতা: ১ টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের আংশিক অথবা কোন সম্পাদনা ছাড়াই প্রকাশিত এবং গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী থাকবে না। লেখকই সব দায়ভার বহন করতে বাধ্য থাকবে।

প্রতি মাসেই পুরস্কার

বিচারক ও পাঠকদের ভোটে সেরা ৩টি গল্প ও ৩টি কবিতা পুরস্কার পাবে।

লেখা প্রতিযোগিতায় আপনিও লিখুন

  • প্রথম পুরস্কার ১৫০০ টাকার প্রাইজ বন্ড এবং সনদপত্র।
  • ্বিতীয় পুরস্কার ১০০০ টাকার প্রাইজ বন্ড এবং সনদপত্র।
  • তৃতীয় পুরস্কার সনদপত্র।

বিজ্ঞপ্তি

“ডিসেম্বর ২০২১” সংখ্যার জন্য গল্প/কবিতা প্রদানের সময় শেষ। আপনাদের পাঠানো গল্প/কবিতা গুলো রিভিউ হচ্ছে। ১ ডিসেম্বর, ২০২১ থেকে গল্প/কবিতা গুলো ভোটের জন্য উন্মুক্ত করা হবে এবং আগামি সংখ্যার বিষয় জানিয়ে দেয়া হবে।

প্রতিযোগিতার নিয়মাবলী