মনে পড়ে হীরক-চূর্ণ দিন।
ক্রায়নিক জল ছেড়ে তুমি উঠে এলে।
কী সুপ্রতিভ হিউমেনয়েড!

তুতে-রং স্ফটিক-চোখ,
মুঠো মুঠো কার্বন-চুল।

আমার কপোট্রনে
লোধ্ররেণুর মতই উড়েছিল
আনন্দের কোয়ান্টাম-ধুলো।

দেহের নিকেল আর ক্রোমিয়ামে
কেঁপেছিলো মাতাল ইলেকট্রন।

তারপর নক্ষত্র-ঝঞ্ঝা
আর আয়ন-ধাঁধানো দিন।

ওই অঙ্গার-দ্বি-অম্লজান
নেভালো এই অলাতচক্র।

ত্রপিত শব্দ-বর্ণ-ঘ্রাণ
শুষে নিলো কেন্দ্রিক ব্ল্যাকহোল।

আজ লোহিত-রশ্মিপ্লুত
এই বাইনারি কোলাহলে,
দ্যাখো নারী
কী দার্ঢ্যময় আমাদের হাইব্রিড,
আধো জীব, আধো সিলিকন চিপ।