একজন কবির কাছে তার মা; মহাকাব্যের মতই প্রিয়।কবিতার মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলতে চেয়েছি সন্তানের প্রতি মায়ের স্নেহ এবং একই সাথে মায়ের প্রতি সন্তানের ভালোবাসা।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২৪ এপ্রিল ১৯৯৩
গল্প/কবিতা: ৪টি

সমন্বিত স্কোর

২.৪৮

বিচারক স্কোরঃ ০.৮৮ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৬ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - মা (মে ২০১৯)

মা অথবা মহাকাব্য
মা

সংখ্যা

মোট ভোট প্রাপ্ত পয়েন্ট ২.৪৮

রণতূর্য ২

comment ১২  favorite ০  import_contacts ২৩৮
যে জন আমায় আগলিয়ে রাখে
জীবনের সব আঁকা-বাঁকা পথে
ঝড়-ঝঞ্ঝাট হোক না যতই,
আশ্রয় তার কোলে...
তাহাকেই মা বলে।

যদি বা করি আমি অপরাধ
তার কাছে মোর সাত খুন মাফ
যতবার পড়ি মাটিতে আমি,
হাত ধরে ফের তোলে...
তাহাকেই মা বলে।

যে জন আমায় আলোকিত করে
তিল তিল করে;নিজ হাতে গড়ে
যখন হারাই অন্ধকারে,
ধিকি ধিকি বাতি জ্বালে..
তাহাকেই মা বলে।

জরা-জীর্ণ,ছেড়া শাড়ি পড়ে
আমাকে রাখে সে পরম আদরে
শান্তির ঘুম আসে কেবলি,
যাহার আচল তলে...
তাহাকেই মা বলে।

নিজে না খেয়ে ভালো বা মন্দ
আমারে খাওয়ায়ে কত আনন্দ
তাহার পাতের শেষ নলা দেয়,
আমার মুখে তুলে...
তাহাকেই মা বলে।

ধরে রাখে মোর আঙুল খানি
হারানোর ভয়;মনে এতখানি
আমি যে কতটা বড় হয়ে গেছি,
বেমালুম যায় ভুলে...
তাহাকেই মা বলে।

যেখানেই যাই; যত দেশ ঘুরি
বেলাশেষে যেনো তার কাছে ফিরি
মনটা কেমন করে আনচান,
চোখের আড়াল হলে...
তাহাকেই মা বলে।

নিজে হেরে যাবে বার বার তবু
আমাকে হারতে দেবে না সে কভু
সারা পৃথিবীর ভালোবাসা দিয়ে,
বেঁধেছে মায়ার জালে...
তাহাকেই মা বলে।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement