নিঃশব্দ বলে পৃথিবীতে কিছু নেই । দুহাতে সজোরে কান চেপে ধরলেও দেখবা একটা ফোস ফোস শব্দ কানে বাজে !! এ পৃথিবীতে নিঃস্বংগ করে কাওকে পাঠানো হয়নি বড়জোর বলতে পারো একলা এসেছ । পৃথিবীর সব গুলা মানুষও যখন তোমার সাথ ছেড়ে যায় তখনও তোমার সাথে কেউ একজন থাকে ,সেই একজন হলো তোমার বুকের বাম পাশে টিক টিক শব্দে বাজতে থাকা তোমার হৃদ স্পন্দন।
সেই একজন কখনোই থেমে যায়না untill u killed him ! জীবনের কাছে হেরে তোমার কাছে তোমার প্রয়োজন ফুরিয়ে গেলে শত নিরবতার মাঝে চাপা পড়ে যায় নিশব্দে চলতে থাকা তোমার ভিতরকার শব্দ গুলি ।
অথচ তোমার প্রয়োজন কি কখনো ফুরাবার ? সব হারিয়ে যখন নিস্ব তুমি ,তুমি ভুলে যাও তুমি নিজেই একটা সম্পদ । সম্পদের কখনো সম্পত্তির প্রয়োজন হয় ?
যে মানুষ গুলো তোমায় ফেলে চলে গেছ তারাও বেঁচে আছে তোমার বুকের বাম পাশে ধুক ধুক করতে থাকা শব্দটার মাঝে। এই একটা শব্দের মাঝে আছে লক্ষ কোটি শব্দ। সেই বেইমান মানুষটির যে পেছন ফিরে না তাকিয়ে তোমার বুক মারিয়ে চলে গিয়েছিলো তার পায়ের শব্দ ,হাটার শব্দ ,চলে যাবার শব্দ কি নেই তোমার বুকের মাঝে?
আবার কোনো একদিন বেসুরে তোমার জীবনে এই মানুষটাই একদিন সুর তুলেছিলো, তার রাশ ভারী নিশ্বাস ,গালে গাল ঘষে দেয়া , আঙুলের ফাকে আঙুল গুজে দিয়ে পায়ে পায়ে হাটা, সে গুলোও তো শব্দ হয়ে সেটে আছে তোমার বুকের বাম পাশের শব্দটার মাঝে।
এই শব্দটা কতটা জোড়ালো কতটা শক্তিধর তোমার জানা নেই। সব হারিয়ে এই শব্দটাই একদিন তোমার অসহ্য মনে হয়, ইচ্ছে হয় টুটি চেপে ধরে নি শব্দ করে দেই সব কিছু !
আফসোস তুমি জানোই না সুর গিটারের তারে না সুর থাকে আঙুলে । ঠিক প্রথম দিন যেমন তারে টোকা দিলে শুধু শব্দ হয়, তারপর দিনে দিনে সুর হয় । জীবনটাও তাই কখনো শব্দ কখনো সুর ।
আস পাশ থেকে সবাই চলে যাবে কিন্তু শব্দ থেমে যাবেনা। যতক্ষন শব্দ আছে ততক্ষন আবার সুরের হাত ছানি আছে। ঠিক ফিকে হতে হতে যেমন হারিয়ে যাওয়ার শব্দ আছে আবার মৃদু স্বরে কারো কাছে আসার শব্দ একসময় জোড়ালো হয়।
সুরের এই পৃথিবীতে নিজেকে নিশব্দ করে দেয়াটা অর্থহীন, শুধু মাত্র বাতাসের সবুজ পাতার শিস দেয়ার শব্দ ,প্রজাপতিদের ডানা মেলার শব্দ, ঝাঁকে ঝাঁকে জোনাকিদের উড়ে বেড়ানোর শব্দ , মেঘের গুড় গুড় করে ডেকে ওঠার শব্দ , অঝরে ঝড়ে পড়া বৃষ্টির শব্দ, এমন হাজারো কোটি শব্দই যথেষ্ট বুকের বাম পাশে নিশব্দে বেজে চলা বিরামহীন শব্দটি নিয়ে ছোট্ট একটা জীবন কাটিয়ে দিতে.....