আমার এই কবিতাটা আমার জীবনের ঘটে যাওয়া একটা ঘটনার উপর ভিত্তি করে লিখেছি। যার জন্য জীবটাকে শেষ করে দিতে চেয়েছি সে খুব ভালোই আছে।সে আমার কোন প্রয়োজন অনুভব করে না। সে যখন বিপদে পরে তখন সে আমার সরলতার সুযোগ নেয় ।পরে ভেবে দেখলাম যে যাকে আমার কোন প্রয়োজন নাই তাকে যতই ভালোবাসি কিন্তু তার কাছে মূল্যহীন তাহলে তার জন্য এ দামী জীবনটাকে নষ্ট করে লাভ কি? কেন তার জন্য আমার কষ্ট করতে হবে? আমি বুঝলাম এ পৃথিবীতে আবেগ মূল্যহীন।তখন নিজের জীবনকে পরিবর্তণ করতে চেষ্টা করেছি । যার প্রেক্ষিতে কবিতাটি লিখেছি।যেহেতু কবিতা লেখার শিরোনাম ছিল “যদি পার বদলে দিতে আমায়” যাতে একটি পরিবর্তনের প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়েছে। যা আমার কবিতার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ বলে আমি মনে করি। আমার এ কবিতাটি আমার নিজের লেখা এটা কোথাও থেকে কপি করা হয়টি। ধন্যবাদ।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১ জুন ১৯৯৩
গল্প/কবিতা: ৫টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

১২

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - কঠোরতা (মে ২০১৮)

যদি পার বদলে দিতে আমায়
কঠোরতা

সংখ্যা

মোট ভোট ১২

মোঃ জহিরুল ইসলাম

comment ৭  favorite ১  import_contacts ৫৪৩
তোমায় পেলে ভেবেছিলাম দুঃখ হবে জয়,
তাই তোমাকে ভালোবেসেছি দিয়ে হৃদয়।
করতে আপন তোমায় আমি করছি জীবন ক্ষয়,
ভেবেছিলাম পেলে তোমায় হবে আমর জয়।
সাধনা আমার এখন দেখি শুধুই ভীরে মনে,
কাদাঁয় আমায় বেহুস ভেবে সুখ ভাসে আজ বনে।
তোমায় চাওয়া, তোমায় পাওয়া কয়লা ধোয়ার মতো,
নদীর পানি আরো কালো হয়ে যতো ধুই ততো।
ভাবি শুধু বোকার মতো এই বুঝি ময়লা যাবে,
ধুতে ধুতে কয়লা দেখি ফুরিয়ে গেল ঘাটে।
এখন আমি কোথায় যাব, কি করিব ভেবে পাইনা কিছু!
জীবনকে তাই তুচ্ছ ভাবি থাকি সবার পিছু।
যদি পার বদলে দিতে আমার জীবন কেউ,
হাত ধরে পার করিও বিষাদ সায়রের ঢেউ।

advertisement

ট্যাগগুচ্ছ

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement