অনুভূতিশুণ্য একরাশ চোখে,
প্রভাত নীলিমায়, যার একরাঙা রক্তিম আকাশ,
কিম্ভুতকিমাকার, দিগন্ত ছাওয়া পালকঝরা
স্বতঃস্ফূর্ত আবেগের প্রকাশ।
অদ্ভুত তালে অতীতের কল,
চিকন সুরে যেটা বেদনা বর্ষায়, এক চিলতে আগুন,
তপ্ত অশ্রুর অসীম হরষে, মায়াবী মায়াকাড়া
রিক্ত বেদনায় কারা করে গুণ গুণ?
একমুঠো বাতিকগ্রস্ত মনে,
দূর পারাবার হতে ভারী মেঘে চড়ে, স্বপ্নালু গাঙচিল
ডানায় রাখা বিকট অট্টহাসিতে, ছন্নছাড়া
আছে এতো সুখ কার অনাবিল?
সাংখ্যিক বিভীষিকাময় স্বপ্নে,
চকমকি পাথরে ভরা আকাশে, জোছনা শেকলে বাঁধা,
গোধূলি লগ্নে অবসন্ন হয়; মোহময় ধরা
বিন্দু বিন্দু ত্রাশে, জড়ো একদল দ্বিধা।
শেষ অপরাহ্ণের ক্লান্ত ভীতি
নেশাগ্রস্ত তারকার পানে চেয়ে লিখে, বিমুগ্ধ ইতিকথা
অসম আকুতিরা দ্বিধায়, ছুটে বাঁধনহারা
বিমুক্ত চেতনে বদলাই, কুখ্যাত রীতিপ্রথা।