লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২২ অক্টোবর ১৯৯৪
গল্প/কবিতা: ১৭টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - কষ্ট (ডিসেম্বর ২০১৭)

হে সুখ???
কষ্ট

সংখ্যা

মোট ভোট

অবাক হাওয়া prosenjit

comment ৪  favorite ০  import_contacts ৪৫৬
হে সুখ,,,
তুমি জানো না হাসি মুখ নিয়ে প্রতি মাসের শেষে,
অপেক্ষার প্রহর গুনি টিউশনির বেতনের,
বেতনের তারিখটা ১ তারিখ থেকে ৫ তারিখ আবার কখনও ৫ থেকে ১০ বা অনন্ত অপেক্ষায় রাখে,
হাসি মুখটাও মলিন হতে হতে মরভূমির বুকের এক ফোঁটা পানির মত লাগে,
টিক সময়ে অর্থ লক্ষি প্রাপ্তির অভাবে অনেক প্রাপ্তি গুলোকেও দূরে ঠেলে দিতে হয় হাসি মুখে ,,হয়ত বা কখনও তুমি সময় মত সকল প্রাপ্তিগুলো পূরণ করবে এ আশায় সপ্ন বুনে!!

হে সুখ,,,
তুমি জানো না চাকুরী পরীক্ষার ফলাফল টা যখন ব্যর্থ হয়,
বড় অন্যায মনে হয় এই পরীক্ষাটাকে মনে হয় ভালো রেজাল্ট করা সব সার্টিফিকেটগুলো ছিঁড়ে ফেলি,
তবুও করি না তুমারই ভরসায় পরম যতনে ফাইল বন্ধ করি সার্টিফিকেটগুলোর সাথে মনঃকষ্টটকেও!!
তখন আর কোন অনূভুতি কাজ করে না ঘুষের টাকায় চাকুরী জীবনে সফল শিক্ষা জীবনে ব্যর্থ বন্ধুটা কে দেখেও!!

হে সুখ,,,
তুমি জানো না কখনও যদি আঘাত পেয়ে রক্ত ঝরে শরীরে,
হাসি মুখে তাতে লাগাই গেন্ডা ফুলের পাতা এই আশায় কখনও বা তুমি লাগিয়ে দিবে ডেটল,স্যাভলন,ব্যান্ডেজ পরম আদরে!!
যদি কখনও জ্বর আসে দেহে,তবে ভেজা তেনাটাকে বারবার ভিজিয়ে মাথায় দেই উত্তাপ কমাতে হাসি মুখে,
তুমারই ভরসায় কখনও বা তুমি আমায় ডাক্তার দেখিয়ে ওষধ খাওয়াবে!!

হে সুখ,,,
তুমি জানো না তুমার ই ভরসায় রিক্সা ভাইয়ের আকুল আবদেন ফিরিয়ে দিয়ে হাঁটতে থাকি মাইলের পর মাইল খুশি মন নিয়ে,
হয়ত বা কখন তুমি পৌঁছে দিবে বাড়ি গাড়ি দিয়ে!!

হে সুখ,,,
তুমি জানো না পূজোয় আনন্দে আসে তুমি আসো না,
প্রতিবার পূজোয় আশায় দিন গুনি সামনের বার আসবে তুমি,
পুজোর মার্কেটে ঘুরে আসি বৃথাই তুমারই অভাবে কিছু না কিনেই বাড়ি ফিরি,,
পুরোনো কাপড়গুলো ইস্ত্রি করে চাহিদা পূরণ করি সঙ্গে মুখে থাকে এক বিদ্রুপের হাসি!!

হে সুখ,,,
তুমি জানো না কখনও বা হবে শার্টর সমাহার,এই আশায় একমাত্র সার্টের ছেড়া বুতামগুলো সেলাই করি বারংবার,
শার্ট টা সন্ধ্যায় ভিজিয়ে করি ধৌত,,গ্যাসের পাশে বসে শুকাই নিশি রাত্র,, সকালে আবার পরিধান করি পরিধানের চাহিদা দূর করে!!

হে সুখ,,,
তুমি জানো না কখনও বা নতুন জুতা হবে অনেক জোড়,,
এই ভাবনায় খুশি মনে পুরোনো একমাত্র ভরসার জুতাটাকে সেলাই করাই বারংবার,,
কখনও আবার সেলাই এর টাকার অভাবে তোমার আশায় খুশি মনে ব্যবহার করি বেড়া বাঁধার তার!!!

হে সুখ,,,
তুমি জানো না তুমি কখনও বা ধরা দিবে এই আশায় সপ্ন বুনি,
হাজারো কষ্টে হাসির অভিনয় করি,
পানতা ভাত নুন মাখিয়ে অর্ধপেট ভরে খেতে খেতে পরম তৃপ্তিতে দু চোখ ভরে মাংস ,পোলাও,রোস্ট খাবার সপ্ন দেখার সাহস করি!!

হে সুখ,,,
তুমি কি সত্যিই ধরা দিবে কখনও ওই সাহেব পাড়া ছেড়ে এসে?????????

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement