কী নিষ্ঠুর তুমি?
কেমন তোমার মন?
আমায় ভুলে কেমন করে থাকতে পারো সারাক্ষণ?
বুঝি তোমার চোখের চাহনি, বুঝি তোমার মন!
বাহিরে তোমার মধু, অন্তরে তা বিষ!
একদিকে তোমার হাসির ছটা
অন্যদিকে দু' চোখের জল।
আমি সহজেই বুঝি গো তোমার ছলনা-
কী-এমন রহস্য লুকিয়ে আছে তোমার মনে
খুলে তা বল না।
সহজেই বুঝে নিলাম তোমার চোখের ভাষা,
আজ তোমার কেমন যেন চোখের চাহনিতে-
ভাব-ভঙ্গি ছল-চাতুৱিতে নিরব প্রথা,
অনেক ছিল বলার তোমায়,
বিগত দিনের না বলা জমানো কথা;
আজ এসে দেখি তোমার এত নিরবতা;
কিরূপ তুমি, আমি ভেবে অবাক তাই।
চলে যেতে চাইলে কিছু তো করার নেই।
মনের উপর জোর করার আমার ও নেই অধিকার।
যাবেই যখন চলে যাও-
বাঁধা আমি দেব না।
হারিয়ে যাবো অনেক দূরে-
তবুও তোমায় খুঁজবো না।
পুড়ব আমি দুঃখের দহনে, দেখতে তুমি পারবে না।
মরব আমি গোপনে তুমি তখন জানবে না।
থাকব আমি একাকী, তবুও তোমায় চাইব না।
খুঁজবে সেদিন আমার হৃদয়,
চাইলে তখন পাবে না।
বুঝে গেছি তোমার মন!
সবার চেয়ে অধিক তোমার চাওয়া-
সুন্দরের পুজারি,অর্থ আর বিলাসিতা পাওয়া।
তাই বুঝি হেলার ভরে খেলার মতো-
কাঁদিয়ে তুমি ফিরে যাও!
আসলেই তুমি ছিলে- রহস্যময়ী নারী।
এ-সবি ছিল তোমার ছলনা-
সবার বেলা পূর্ণ হলো মনের আশা,
তোমার বেলা তা হলো না।