কলম আজ কাঁদছে তুমুল পায়ে দিয়ে দুঃখের নুপুর লেখার কাগজে বসে,
শব্দের ঘুড়ি উড়ছে নাতো ছুটছে না তার হলুদ কবিতার পিঠের পিছে।

লিখেছি কত কাব্য রচনা মারিয়া দুঃখ অনুভূতি,
আসছে না আজ মোর কোথাও থেকে কবিতার সব পান্ডুলিপি।

হাতের কাছে শব্দ গুলো ভাই আজ লাগছে এলোমেলো,
তাই বলে ভাই ছুঁড়ো নাকো সবাই কহিয়া একি কিছু হলো?

বাসা ভাংগা পাখি ভেজা শরীর দেখেছ কখনো কাঁপা পায়ে গাছের ডালে,
বুঝবে কি করে ব্যথা তোরা মোর যা ছিল লেখা এই কপালে?

আরে....
তোরাতো মায়ের আঁচল ছায়াবটে দিচ্ছিস ঘুম দু'চোখ বুঝে,
অথচ
মা বিয়োগ শূন্য আঁচলের মরুর মাঝে খুঁজছি ছাঁয়া আমি বিরামহীন হেঁটে।

কত খুঁজিফিরি স্নেহ মমতা তাঁর মত করে গোলক পৃথিবীর আকাশ নীড়ে,
পাই শুধু সেথা ভেজাল ভরা স্বার্থমাখা ভালোবাসাহীন হৃদয় গুলো আসছে তেড়ে।

তাই....
আজ শূন্য বুকে ভালবাসা খুঁজি নিঝুম রাতের তারাভরা ঐ আকাশ মাঝে,
তবু পাইনা খুঁজে অমন ভালবাসা তুমি গেছো তাই দুঃখি করে মোরে একলা পথে ।