বহু দূরে বাঁজে একাকিনী বাঁশী করূণ এক সুরে ঐ,
মনেতে ভিড়েছে কত কথা আজ,পায়না খুঁজে তো থই।
হারিয়ে ফেলেছি সোনালী সে দিন কত সব প্রিয় মুখ,
বুকের মাঝেতে আগলিয়ে রেখে বাড়িয়েছি শুধু দুখ।
শীতের নরম ওম ভরা ভোরে মনে পড়ে যায় মাকে,
ভাবিনি কখনো কাটাতে হবে দিন থাকতে ছেড়ে যে তাকে।
মায়ের মমতা হাতড়ে বেড়াই খুঁজে যদি পাই কভু,
কোন্‌ সে আদলে বানিয়েছ তাকে পাইনা কেন হে প্রভু?
বাবার শাসন, বুক ভরা স্নেহ্‌...কেমনে ভুলবো আমি!
রেখেছি জমিয়ে বুকের গহীনে সোনার চেয়ে তা দামী।
"বাবা" বলে ডেকে পুত্রের মাঝে অবাক নয়নে দেখি,
তেমনি সে মুখ, বুক ভরা স্নেহ, ভরে যায় জলে আঁখি।
মঞ্জুটা ছিল পাশের বাড়িতে খেলার সাথী সে মোর,
দুজনে মিলে কত যে খেলেছি কতই না তোড়জোড়।
বজলু চাচাকে পড়ে খুব মনে এনে দিত ঝালমুড়ি,
পড়াতে বসায়ে কান মলে দিত ডাকতো আমায় "বুড়ি"।
ছোট ভাই দুটি দূরদেশে গেল মায়ার বাঁধন ছিঁড়ে,
ব্যাথাতুর মনে কাঁদছে হৃদয় শুধু আজ কুরে কুরে।
হারানোর মাঝেই খুঁজে ফিরি আজ নূতন মায়ার বাঁধন,
জেগে ওঠে চর নদীকে বিলিয়ে এমনি জগৎ নিয়ম।।