কবিতার সাথে যতবার দেখা হয় ততবার বাসর 
হয় চোখাচোখি হৃদয়ের কতকথা যুগল আসর।
গলুইয়ে চাটাইয়ে মাছরাঙা রঙ 
জলজেরা ফুটে আছে প্রাকৃত আড়ং 
উঁকি দেয় পিঙ্গল আকাশ মেহেদির লাল 
লজ্জাবতী ঘোমটা খুলে টোলপড়া গাল । 
ফুলদল পাপড়িতে একি হিল্লোল আজ
উন্মন হাসিতে খুলে যৌবনের ভাঁজ । 
ফুঁ দিলে উড়ে চুল বেণির দোলা 
ঝর্নার জলে কবিতা খুলে প্রাণের ঝুলা। 
হাওয়া যদি হাত রাখে কবিতার শরীর 
মৌনতার রাগ রঙ ভাঙবে আবীর । 
শরীরের ভাষা ফুটে হয় আলাপন 
সরোবরে খেলি জল নিবিড় আসন । 
নিশি-ঘোরে মধ্য দুপুরে একি পরশ লাগে! 
কেঁপে উঠে ভূগোলের গোল স্নিগ্ধ অনুরাগে।