আর কবিতা পড়োনা-----

কবিকে রেখে দাও শো-কেসের সৌন্দর্য করে,

নয়তো উড়িয়ে দাও নীল নীলাম্বরে।

নদী পর্ব্বত সাগর লোকালয়ে

ছড়িয়ে পড়ুক সতীর ছিন্ন দেহের মত।

কুড়িয়ে পাওয়া এলোমেলো শব্দগুলো নিয়ে

তান্ডব নৃত্য করুক উলঙ্গ শিশুরা।

শব্দের গাঁথুনি আর কখনও মিশবে না

সুদৃশ্য মলাটের পাতায়।

ব্যাকুল হবেনা কোন পাঠক

কবিতার ভাষায়। অতঃপর----

কবিতা বয়ে দেবে,

নদী, সাগর, ফেনিল উর্মি, পর্বতের সু-উচ্চ চূড়া।

কবির বড় ভয়,

কবিতার সমস্ত উৎস যদি হারিয়ে যায় তিমিরে।

লোকালয় হবে জনাকীর্ণ,

এক ঝাঁক শকুন লুফে নেবে কবির হৃদয়।

তবুও কবির শান্তনা,

বুলি ফোটাবে শকুনের মুখে

জন্মান্ধতার সমস্ত পাপ মুছে দেবে শকুনের,

কবি ও কবিতার সৌন্দর্য্য।